মারা গেলেন আহত বৃদ্ধা তছিরন নেছা

45

শৈলকুপায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা
ঝিনাইদহ অফিস:
ঝিনাইদহের শৈলকুপার পাইকপাড়ায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের সময় আহত হয়েছিলেন বৃদ্ধা তছিরন নেছা (৭৮)। ১৭ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গতকাল বুধবার দুপুরে তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলুর রহমান এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
জানা গেছে, ৪ আগস্ট শৈলকুপার পাইকপাড়া গ্রামে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে বৃদ্ধা তছিরন নেছাসহ প্রায় অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হন। মারাত্মক আহত তছিরন নেছাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল তিনি মারা যায়। নিহত তছিরন নেছা পাইকপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তার শেখের স্ত্রী। এদিকে, তছিরন নেছার মৃত্যুর পর গ্রামটিতে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সরেজমিনে পাইকপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, গ্রামবাসীর মধ্যে চাপা আতঙ্ক বিরাজ করছে। মোড়ে মোড়ে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
নিহত তছিরন নেছার পুত্রবধূ আছিয়া খাতুন জানান, তাঁর শাশুড়িকে ঘরের মধ্যে উপর্যুপরি কুপিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে যায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা। দারিদ্র্যতার কারণে ভালোভাবে তাঁকে চিকিৎসাও করাতে পারেননি তাঁর পরিবারের লোকজন। শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলুর রহমান জানান, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন বৃদ্ধা তছিরন নেছা। তাঁর মৃত্যুর পর গ্রামে আবার যাতে সহিংসতা না ছড়িয়ে পড়ে, সে কারণে পুলিশ মোতায়েন আছে। এ ছাড়া ওই হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।