মরেও শান্তি পায় না মানুষ

42

বিশ্ব ডেস্ক:
মৃত্যুর পর মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ এক বছরেরও বেশি সময় স্থানান্তরিত হয়। মৃতদেহ মাংসপিন্ডে রূপান্তরিত হওয়ায় এবং লিগামেন্টগুলো শুকিয়ে যাওয়ায় পচন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে এ ঘটনা ঘটে বলে অস্ট্রেলিয়ার এক বিজ্ঞানী জানিয়েছেন। অ্যালিসন উইলসন নামের ওই বিজ্ঞানীর দাবি, এর অর্থ হচ্ছে, মৃত্যুর পরও মানুষ শান্তি পায় না। উইলসনের এই আবিষ্কার অপরাধ তদন্তে মৃতদেহ পচন প্রক্রিয়া নিয়ে বিশ্বের গোয়েন্দা ও প্যাথলজিস্টদের জন্য নতুন তথ্য প্রদান করবে। ১৭ মাস কবরস্থ মৃতদেহের ছবি বিশ্লেষণ করেছেন উইলসন। এর জন্য তিনি ব্যবহার করেছেন বিরামহীন ক্যামেরা। কবরস্থ মৃতদেহের অবস্থা দেখতে প্রতি মাসে অস্ট্রেলিয়ার কেইর্নস থেকে সিডনিতে যেতে হতো তাকে। উইলসন জানান, মানুষের মৃত্যুর পর সবচেয়ে কাছে বা পাশে থাকে তার হাত। তবে কবরস্থ করার পর সেই হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে আরেক পাশে চলে যায়। তিনি বলেন, ‘আমরা যেটা পেয়েছি সেটা হচ্ছে, হাতগুলো উল্লেখযোগ্যভাবে নড়াচড়া করে। এতে হাতগুলো পাশ থেকে সরে দিয়ে দেহের আরেকপাশে যেয়ে পঁচে যায়।’ অস্ট্রেলিয়ান ফ্যাসিলিটি ফর টাফোনোমিক এক্সপেরিমেন্টাল রিসার্চের উপ-পরিচালক ড. মাইকেন ইউল্যান্ড জানিয়েছেন, দেহগহ্বরে থাকা গ্যাসের পাশাপাশি পোকামাকড়ের কারণেও মৃতদেহাংশ স্থানান্তরিত হয়।