বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব সরোয়ার সহ ৩০ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে চার্জশিট ।

737
বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সরোয়ার সহ ৩০ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে চার্জশিটসরকার বিরোধী আন্দোলন চলাকালে নাশকতার অভিযোগে করা মামলায় বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব ও বরিশাল মহানগর বিএনপি’র সভাপতি এ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান সরোয়ার সহ বিএনপি ও জামায়াতের ৩০ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দেয়া হয়েছে।

সোমবার বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাইদুল হক সংশ্লিষ্ট থানার সরকারি নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) আশিষ পাল এর নিকট চার্জশিট জমা দেন।

চার্জশিটে অভিযুক্ত বিএনপি’র অন্যান্য নেতা-কর্মীরা হলো- বিএনপি’র বরিশাল মহানগর শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক ও নগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও কাউন্সিলর জিয়া উদ্দিন সিকদার, ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মীর এ.কে.এম জাহিদুল ইসলাম, ২৪নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি ও কাউন্সিলর ফিরোজ আহম্মেদ, ২৬ নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি ও কাউন্সিলর ফরিদ উদ্দিন হাওলাদার, ২৫নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন, ২৪নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের সভাপতি সাইদুর রহমান ওরফে চুন্নু মৃধা, কোষাধ্যক্ষ আসাদুল্লাহ আসাদ, মামুন মোল্লা, ২৪নং ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি ফরিদ আহম্মেদ, ২৫নং ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি কবির হোসেন খান, সাধারন সম্পাদক কাওসার মোল্লা,

একই ওয়ার্ডের ছাত্রদলের সভাপতি অলিউল ইসলাম পিন্টু, যুবদল নেতা সোহাগ, ইসলাম খান, দুলাল ফকির, মনির হোসেন ওরফে নেতা মনির, রুবেল চৌধুরী ওরফে মজনু, হারুন, বিএনপি নেতা মো. বাচ্চু, শাকিল খান, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা সামসুল কবির ফরহাদ,২৬নং ওয়ার্ড শ্রমিক দলের সভাপতি বাচ্চু ফরাজী, মো. আব্দুল আজিজ খলিফা ও কামরুল হাসান।

এছাড়াও মামলায় পশ্চিম জেলা জামায়াত ইসলামের আমীর মো. হাবিবুর রহমান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. পলাশ, মহানগর জামায়াতে ইসলামের রোকন মো. শামিম কবির, হিরন মিয়া, মো. ফিরোজ আলমকেও অভিযুক্ত করা হয়েছে।

পাশাপাশি মামলা থেকে ৬ আসামীকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য বিচারকের কাছে আবেদন জানিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাইদুল হক।

সংশ্লিষ্ট থানার জিআরও আশীষ পাল জানান, সরকার বিরোধী আন্দোলন চলাকালে গত ২০১৫ সালের ২৩ জানুয়ারী নগরীর শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর ঢালে রাত সাড়ে ১১টায় ট্রাকে পেট্রোল বোমা বিক্ষেপের মাধ্যমে অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় ট্রাকের চালক শফিউদ্দিন আহত হন। পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ঐ রাতেই কোতয়ালী মডেল থানায় এএসআই শরিফ হোসেন বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় এ্যাড. মজিবুর রহমান সরোয়ার সহ নামধারী ৩০ জন সহ অজ্ঞাত আরো ২৫ জনকে আসামী করা হয়েছিলো।