ফ্রি ওয়াইফাইয়ে হ্যাকিংয়ের ফাঁদ!

262

প্রযুক্তি ডেস্ক: বিনামূল্যে (ফ্রি) ওয়াইফাই ব্যবহারের সুবিধা কোনো গ্রাহকের ব্যক্তিগত ও গোপনীয় তথ্য হ্যাকারের হাতে তুলে দিয়ে বিপর্যস্ত করে তুলতে পারে তার স্বাভাবিক জীবন। এতে ক্ষতির মুখে কিংবা বড় ধরনের ঝামেলার সম্মুখীন হতে পারে অনেকে। বিশেষ করে বিভিন্ন সময় দেখা যায় নামীদামী প্রতিষ্ঠান ও জনবহুল স্থানগুলোর পাশে ফ্রি ওয়াইফাইয়ের অ্যাকসেস । এসব অ্যাকসেসের স্থানগুলোতে হ্যাকাররা ফাঁদ পেতে রাখে। তাই হ্যাকিং থেকে বাঁচতে ফ্রি ওয়াইফাইটি নির্দিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের কিনা তা নিশ্চিত হওয়া উচিত। হ্যাকাররা ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহারের সময় গ্রাহকের মোবাইল বা সঙ্গে থাকা অন্য কোনও ডিভাইস ট্র্যাক করে তার ব্যাংকের যাবতীয় তথ্য, মেসেজ, পাসওয়ার্ড, ই-মেইল সবকিছু জেনে নিতে পারে সহজেই। অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস, লিনাক্স, ম্যাকওএস ও উইন্ডোজ নেটওয়ার্কে হতে পারে সাইবার হানা। বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন, খুব বেশি প্রয়োজন না হলে পাবলিক ওয়াইফাই ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। যেসব ডিভাইস থেকে অনলাইন ব্যাংকিং করা হয় বা যাতে অন্য কোনও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আছে, তেমন ডিভাইসে ওয়াইফাই অ্যাকসেস না করাই ভাল। এছাড়া ডিভাইসের ওয়াইফাই সেটিংস থেকে ‘অটোম্যাটিকালি কানেক্ট’ অপশন বন্ধ করে রাখতে হবে। রেস্তোরাঁ কিংবা শপিং মলে ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহারে গ্রাহকদের আরো সতর্ক থাকতে হবে।