প্রযুক্তিপণ্যের বাজার বিপর্যয়ের মুখে

41

প্রযুক্তি প্রতিবেদন
করোনাভাইরাস আতঙ্কে বাতিল হয়ে গেছে প্রযুক্তি দুনিয়ার সবচেয়ে বড় আয়োজন মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস (এমডব্লিউসি)। প্রতি বছর এ আয়োজনেই নতুন প্রযুক্তিপণ্যের সঙ্গে পরিচয় করে দেওয়া হতো দুনিয়াকে। গত বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এমডব্লিউসির আয়োজক জিএসএমএ কর্তৃপক্ষ জানায়, করোনাভাইরাসের বিস্তারজনিত চরম উদ্বেগজনক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ২৪ থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি স্পেনের বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিতব্য এমডব্লিউসির আয়োজন বাতিল করা হয়েছে। এখন প্রস্তুতি হবে আগামী বছর আরেকটি সফল আয়োজনের জন্য। এমডব্লিউসি স্বাস্থ্যগত উদ্বেগের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এ দিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বিপজ্জনক আকার ধারণ করায় বড় ধরনের সংকটে পড়তে যাচ্ছে প্রযুক্তিপণ্যের বাজারও। প্রায় ৬০ শতাংশ প্রযুক্তিপণ্যের বাজার চীনের দখলে থাকায় বাংলাদেশের বাজারে এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। বিশ্ববাজারেও এর বড় প্রভাব পড়ছে ব্যাপকভাবে।
বাংলাদেশে প্রযুক্তিপণ্য আমদানিকারকরা জানিয়েছেন, গত ২৫ ডিসেম্বর থেকে চীন থেকে উড়োজাহাজে প্রযুক্তিপণ্য পরিবহন বন্ধ রয়েছে। শুধু সমুদ্রপথে জাহাজে কিছু পণ্য গত সপ্তাহ পর্যন্ত এসেছে। এটিও যে কোনো মুহূর্তে বন্ধ হলে বাজারে সব ধরনের প্রযুক্তিপণ্যের দাম বাড়তে পারে। তবে বাংলাদেশেই সংযোজন হওয়ার ফলে আগামী দুই-তিন মাস মোবাইল ফোন হ্যান্ডসেটের বাজারে প্রভাব পড়বে না বলে জানা গেছে। কিন্তু সংকট দীর্ঘায়িত হলে দেশের হ্যান্ডসেট সংযোজনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো কাঁচামাল সংকটে পড়বে। কারণ, প্রায় শতভাগ কাঁচামালই আসে চীন থেকে।
মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, করোনাভাইরাস সংকট পরিস্থিতি আরও দীর্ঘ হলে চীন থেকে যন্ত্রপাতি সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে বাংলাদেশে মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ এবং চলমান কারিগরি উন্নয়ন কাজ ব্যাহত হতে পারে। কারণ, বাংলাদেশের মোবাইল নেটওয়ার্ক সরঞ্জামাদির প্রায় ৭০ শতাংশই চীনের দুটি কোম্পানি সরবরাহ করে থাকে। এরই মধ্যে যন্ত্রপাতি সরবরাহ অর্ধেকে নেমে গেছে। ফলে মোবাইল নেটওয়ার্কেও সংকটজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে।