প্রবীণ রাজনীতিক পান্নার জানাজায় মানুষের ঢল : দাফন সম্পন্ন

64

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক
বিশেষ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা জান্নাতুল মাওলা কবরস্থানে শেষ গন্তব্য হলো প্রবীণ রাজনীতিক মুন্সি টিপু সুলতান পান্নার। এর আগে ঢাকা থেকে তাঁর মরদেহ নেওয়া হয় হাসপাতাল রোডের বাসভবনে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জান্নাতুল মাওলা কবরস্থান জামে মসজিদে জোহরের নামাজের পর জানাজা শেষে তাঁর দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়।
তাঁকে শেষ বিদায় জানাতে জানাজা ও দাফনকার্যে শরীক হয়েছিলেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন, চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, আলমডাঙ্গা পৌর মেয়র হাসান কাদির গণু, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু, দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনসুর বাবু, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খুস্তার জামিল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, অ্যাড. মহ. শামসুজ্জোহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান, কোষাধ্যক্ষ আলী রেজা সজল, কার্যনির্বাহী সদস্য জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাড. বেলাল হোসেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান মনজু, জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজিব হাসান কচি, সহসভাপতি কামাল জোয়ার্দ্দার, দৈনিক সময়ের সমীকরণ-এর প্রধান সম্পাদক নাজমুল হক স্বপন, অধ্যক্ষ মাহাবুল ইসলাম সেলিম, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মুজিবুল হক মালিক মজু, খন্দকার আব্দুল জব্বার সোনা, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কবির, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিউর রহমান মতি, সদস্য মাফিজুর রহমান মাফি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, সহসভাপতি শাহাবুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হুসাইন জ্যাকিসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী, অন্য দলের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, আইনজীবী, পেশাজীবী, সংস্কৃতিজন, সাংবাদিক ও নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।
উল্লেখ্য, গত সোমবার রাত পৌনে আটটার দিকে ঢাকার বক্ষব্যাধী হাসপাতালের এজমা সেন্টারে ইন্তেকাল করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি, সাবেক পৌর কমিশনার ও মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মুন্সি টিপু সুলতান পান্না। বেশ কিছুদিন যাবত সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর।