পুলিশ পরিচয়ে গরু ব্যবসায়ীর অর্ধলাখ টাকা লুট

26

ঈদকে সামনে রেখে দর্শনায় বেড়েছে ছিনতাইকারীদের তৎপরতা
দর্শনা অফিস:
পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে দর্শনায় শুরু হয়েছে ছিনতাইকারীদের ব্যাপক তৎপরতা। বিশ্বব্যাপী করোনার ক্লান্তিলগ্নেও থেমে নেই ছিনাতাইকারীদের অপকর্ম। পুলিশ পরিচয়ে অভিনব কৌশলে দর্শনা পৌর এলাকার রামনগর ব্রিজ-সংলগ্ন দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামের মৃত লাল মিয়া শাহর ছেলে হাবিবুর রহমানের কাছ থেকে নগদ ৪৭ হাজার ৫ শ টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়েছে ছিনতাইকারীরা। এসময় ছিনতাইকারীরা হাবিবুর রহমানকে মারধর করেছে বলেও জানা গেছে।
জানা গেছে, গতকাল শনিবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে দর্শনা দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামের মৃত লাল মিয়া শাহর ছেলে হাবিবুর রহমান দামুড়হুদার পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের মদনা গ্রামের গরু ব্যবসায়ী সেলিমের কাছে গরু কেনার উদ্দেশ্যে মোটরসাইকেলযোগে রওনা দেয়। পথের মধ্যে দর্শনা পৌর এলাকার রামনগর মাথাভাঙ্গা ব্রিজ-সংলগ্ন স্থানে পৌঁছালে সাদা পোশাকে তিন ব্যক্তি পুলিশ পরিচয়ে হাবিবুরকে গতিরোধ করেন। এসময় হাবিবুর মোটরসাইকেলটি থামালে সাদা পোশাকে ওই তিন ব্যক্তি নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে হাবিুরকে ফেনসিডিল ব্যবসায়ী বলে তল্লাশি শুরু করেন। পরে তাঁরা হাবিবুরের কাছে থাকা গরু কেনার ৪৭ হাজার ৫ শ টাকা ছিনিয়ে নেন এবং মারধর করেন। পরে হাবিবুরকে থানায় নেওয়ার কথা বলে মোটরসাইকেলযোগে কার্পাসডাঙ্গা, দামুড়হুদা হয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে লোকনাথপুর তালতলা ব্রিজের নিকট ছেড়ে দেন। এ সময় হাবিবুরের নিকট থাকা একটি মটরলা মোবাইল নিয়ে পালিয়ে যান ছিনতাইকারীরা।
এ বিষয়ে হাবিবুর রহমান জানান, ‘আমি প্রথমে বুঝতে পারিনি এবং তাদের কথা ও কার্যকলাপ পুলিশের মতোই। পরে যখন রাত সাড়ে ১০টার সময় আমাকে ছেড়ে দেয় এবং এ ঘটনা কাউকে বলতে নিষেধ করে, তখন বুঝতে পেরেছি তাঁরা পুলিশ নয়।’
এ বিষয়ে দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুবুর রহমান জানায়, এ ধরনের কোনো ঘটনার অভিযোগ পাইনি। তবে অভিযোগ পেলে বিষয়টি দেখা হবে।