নারীর প্রতি সহিংসতা নয়

13

ধর্ম ডেস্ক
নারী-পুরুষের সমন্বয়ে সভ্যতার বিকাশ। সৃষ্টিগতভাবে উভয়ের মর্যাদা সমপর্যায়ে হলেও শৃঙ্খলার খাতিরে নারীকে পুরুষের অধীনস্থ বানিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে এর জন্যও সুস্পষ্ট নীতিমালা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। কোনোভাবেই নারীকে তার প্রাপ্ত অধিকার থেকে বঞ্চিত করা যাবে না। আর নারীর প্রতি কোনো অন্যায় ও সহিংস আচরণের তো প্রশ্নই আসে না। আল্লাহ কোরানে বলেন, ‘আল্লাহর নিদর্শনাবলির মধ্যে রয়েছে, তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের মধ্য থেকে তোমাদের সঙ্গিনী সৃষ্টি করেছেন, যাতে তোমরা তাদের কাছে শান্তি পাও এবং তোমাদের মধ্যে পারস্পরিক ভালোবাসা ও দয়া সৃষ্টি করেছেন।’ ইসলামে নারীর প্রতি সহিংসতা ও নির্যাতনের সুযোগ নেই। নারী নির্যাতনকারীকে ঘৃণ্য অপরাধী হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। যেসব কারণে নারীরা সমাজে নির্যাতিত হন, সেসব থেকে বিরত থাকতে আল্লাহ নির্দেশ দিয়েছেন। আমাদের দেশে নারী নির্যাতনের চিত্র দুঃখজনক। হত্যা, যৌন হয়রানি, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন, উত্ত্যক্ত করা এসব সহিংসতা নারীর জীবনে এখন নিত্যদিনের ঘটনা। নির্যাতনের ফলে অনেকের মৃত্যু হয়, কেউ আত্মহত্যায় বাধ্য হয়। এসবের মূলে রয়েছে মানুষের প্রতি প্রেম-প্রীতি ও ভালোবাসার অভাব এবং নারীর সম্পদের মোহ ও লোভ-লালসা। নারী ও পুরুষ যে নীড় বাঁধে, সে সুখের ঘরে একে অপরের প্রতি কোনোক্রমেই শত্রুভাবাপন্ন ও নির্যাতনকারী হতে পারে না। ইসলামে নারীদের অনেক বেশি মর্যাদা ও অধিকার দেয়া হয়েছে।