দেশে আরও ৩১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২২৯৩

69

গত ২৪ ঘণ্টায় চুয়াডাঙ্গায় নতুন দুজন করোনায় আক্রান্ত
সমীকরণ প্রতিবেদন:
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস সংক্রমিত আরও ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময় নতুন করে আরও ২ হাজার ২৯৩ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। দেশে এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৬৭ হাজার ২২৫ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ৬ হাজার ৬৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৮৩ হাজার ২২৪ জন। গতকাল মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন পরীক্ষাগারে ১৫ হাজার ৫০১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার সংখ্যা বিবেচনায় রোগী শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৭৯ শতাংশ। দেশে এখন পর্যন্ত সংক্রমণ বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৩ শতাংশ। গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। ক্রমেই মহামারি আকারে সংক্রমণ বিশ্বের প্রায় সব দেশে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম সংক্রমণ শনাক্তের কথা জানায় সরকার। শুরুর দিকে রোগী শনাক্তের হার কম ছিল। গত মে মাসের মাঝামাঝি থেকে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে। ওই মাসের শেষের দিক থেকে রোগী শনাক্তের হার ২০ শতাংশের ওপরে চলে যায়। আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত সেটি ২০ শতাংশের ওপরে ছিল। এরপর থেকে নতুন রোগীর পাশাপাশি শনাক্তের হারও কমতে শুরু করেছিল। একপর্যায়ে দৈনিক রোগী শনাক্তের হার ১০ শতাংশ পর্যন্ত নেমেছিল। মাস দুয়েক সংক্রমণ নিম্নমুখী থাকার পর নভেম্বরের শুরুর দিক থেকে নতুন রোগী ও শনাক্তের হারে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা শুরু হয়। নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে দৈনিক নতুন রোগী শনাক্তের গড় ২ হাজার ছাড়ায়। আর গতক সোমবার নভেম্বরের শেষ দিনে শনাক্ত ছাড়ায় আড়াই হাজার। নতুন রোগী বাড়ার পাশাপাশি করোনায় মৃত্যুও আবার বাড়ছে। জনস্বাস্থ্যবিদেরা বলছেন, টিকা না আসা পর্যন্ত সংক্রমণ প্রতিরোধের মূল উপায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। বিশেষ করে বাইরে বের হলে মুখে মাস্ক পরা শতভাগ নিশ্চিত করা, কিছু সময় পরপর সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোয়ার বিধি মেনে চলতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে সংক্রমণ আরও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে।
চুয়াডাঙ্গা:
চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে আরও দুইজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। জেলায় এ নিয়ে মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৫৯৩ জন। গতকাল মঙ্গলবার রাত ৮টায় জেলা সিভিল সার্জন অফিস এ তথ্য নিশ্চিত করেন। গতকাল জেলায় নতুন ৩ জন সুস্থ হয়ছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪৮৪ জন। গতকাল নতুন আক্রান্ত দুই জনই সদর উপজেলার বাসিন্দ। আক্রান্ত দুইজনই নারী, বয়স ১৩ ও ৩৫ বছর।
জানা যায়, গত সোমবার জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ করোনা আক্রান্ত সন্দেহে নতুন ২৮টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করে। গতকাল ২৮টি নমুনার ফলাফল সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়। এর মধ্যে ২টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ ও বাকি ২৬টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ আসে। গতকাল জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা পরীক্ষার জন্য সদর উপজেলা থেকে ১২টি ও আলমডাঙ্গা থেকে ৫টি নমুনাসহ ১৭টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করেছে।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ ৬ হাজার ৯০২টি, প্রাপ্ত ফলাফল ৬ হাজার ৭১১টি, পজিটিভ ১ হাজার ৫৯৩টি, নেগেটিভ ৫ হাজার ৩৩১টি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জেলায় হোম আইসোলেশনে ছিলেন ৪৯ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ছিলেন ৭ জন। চুয়াডাঙ্গা জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৪১ জন, এর মধ্যে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে জেলার বাইরে।