দুই লাখ টাকা ফেরত দিলেন পোস্টাল অপারেটর

61

আলমডাঙ্গা পোস্ট অফিসে বিধবা নারীর তিন লাখ টাকা প্রতারণার ঘটনা
আলমডাঙ্গা অফিস:
আলমডাঙ্গার পোস্ট অফিস থেকে প্রতারণা করে এক নারীর ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় ২ লাখ টাকা ফেরত দিয়েছেন পোস্টাল অপারেটর টিপু সুলতান। বাকি এক লাখ টাকা এক সপ্তাহ পরে দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। গতকাল বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন ভুক্তভোগী সেলিনা খাতুন।
জানা গেছে, আলমডাঙ্গা কলেজপাড়ার মরহুম হারুন অর রশিদের স্ত্রী সেলিন খাতুন তিন লাখ টাকার এফডিআর করেন আলমডাঙ্গা পোস্ট অফিসে। গত ৬ জুলাই সোমবার তিনি এফডিআর ভাঙিয়ে নিতে ক্যাশ কাউন্টারে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় পোস্টাল অপারেটর টিপু সুলতান তিন লাখ টাকা দেওয়ার সময় সেলিনা খাতুনকে ডাকলে পাশ থেকে এক প্রতারক ওই নারীর সন্তান পরিচয় দিয়ে ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে সেলিনা খাতুন পোস্টাল অপারেটর টিপু সুলতানের কাছে টাকার কথা বললে তিনি বলেন, ‘আপনার ছেলে টাকা নেওয়ার কথা বললে, তার কাছে ৩ লাখ টাকা দিয়ে দিয়েছি।’ এই কথা শুনে সেলিনা খাতুনের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এ বিষয়ে পোস্ট মাস্টার ফয়জুন নাহার জানান, তিনি একেকটি দায়িত্ব একেকজনের ওপর দিয়েছেন। তারপরও এ ধরনের ঘটনা ঘটলে তিনি এর জন্য দায়ী নন।
তবে সেলিনা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, ‘টাকা আমার নামে, ৫ হাজার ১০ হাজার টাকা নয়, ৩ লাখ টাকা। আমি এখানে উপস্থিত, আমাকে না জানিয়ে আমার ছেলের পরিচয় দিল, আপনি তাকে টাকা দিয়ে দেবেন।’ বিষয়টি সন্দেহজনক বলেও দাবি করেন তিনি। সন্দেহের তীর ছুড়েন পোস্টাল অপারেটর টিপু সুলতানের ওপর। উপস্থিত সবাই বিষয়টি সন্দেহের চোখে দেখছেন। বিধবা সেলিনা খাতুন টাকা না পেলে পোস্টাল অপারেটার টিপু সুলতান ও পোস্ট মাস্টার ফয়জুন নাহারের নামে টাকা আত্মসাতের মামলা করবেন বলে ওই সময় জানিয়েছিলেন।