দামুড়হুদার চন্দ্রবাসে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬

40

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় পূর্ব বিরোধের জেরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেল ৩টার দিকে চন্দ্রবাস গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন চন্দ্রবাস গ্রামের ভৈরবপাড়ার মৃত আক্কাস আলীর ছেলে তাহাজউদ্দীন (৫৫), আক্কাস আলীর ভাই মৃত আহাম্মেদ আলীর ছেলে জিয়াউর রহমান (৪০), একই এলাকার কায়ছারের ছেলে গাফ্ফার (২৯), গাফ্ফারের নানী নাহার বেগম (৬৮), মৃত আব্দুর সাত্তারের ছেলে সাইবার (৩২) ও জব্বার আলীর ছেলে আল-আমিন (২৫)। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় পরিবারের সদস্যরা আহতদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। জানা যায়, কয়েক মাস ধরে দুইপক্ষের মধ্যে রাস্তা নিয়ে বিবাধ চলছিল। এরমধ্যে গতকাল শনিবার দুপুরে তাহাজউদ্দীনের বাড়ির একটি পালিত ছাগল গাফ্ফারের বাড়ির ভেতরে যেয়ে গরুর জন্য রাখা ঘাষ খেয়ে নেয়। এ ঘটনায় গাফ্ফার তাহাজউদ্দীনের বাড়ির সদস্যদেরকে গালমন্দ করতে থাকে। গালমন্দের একপর্যায়ে দুইপক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে গাফফার একটি ধারালো দেশীয় দা দিয়ে তাজউদ্দীনকে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় দুইপক্ষের লোকজন ছুটে আসলে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এতে উভয় পক্ষের মোট ৬ জন আহত হয়। পরে স্থানীয়রা পরিবারের সহায়তায় আহতদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতদেরকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দেন। গাফফারের দায়ের কোপে তাহাজউদ্দীন ও জিয়াউর রহমান গুরুত্বর জখম হওয়ায় চিকিৎসক তাঁদেরকে হাসপাতালে ভর্তি রাখেন। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাঁরা বাড়ি ফিরেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেক বলেন, ‘ঘটনাটি সম্পর্কে আমরা জানতে পেরেছি। তবে এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পায়নি।’