দর্শনায় মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের মোটরসাইকেল থেকে রহস্যজনকভাবে ইয়াবা উদ্ধার : স্থানীয়দের চাপে হিরোককে ছেড়ে দিলে পুলিশ

115

দর্শনা অফিস: দর্শনায় পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে হিরোক নামের একজনের মোটরসাইকেল থেকে রহস্যজনকভাবে ২ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে এসআই রাম। স্থানীয় জনগনের মুখে পুলিশ প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় ঘটনাস্থলেই হিরোককে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে দর্শনা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ভাই ভাই হোটেলের পাশে।ঘটনাসূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে দর্শনা মোবারকপাড়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত নুর হাকিমের ছেলে হিরোক (৩৫) ব্যক্তিগত কাজে দর্শনা বাসস্ট্যান্ডে আসে। এসময় দর্শনা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ভাই ভাই হোটেলের পাশে নিজ ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি রেখে অন্যান্য কাজ সারে। কাজ শেষে হিরোক মোটরসাইকেলের নিকট আসলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দামুড়হুদা পুলিশের এসআই রাম ও সঙ্গীয় এক কনস্টেবল নিয়ে উক্ত স্থানে মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। এসময় হিরোকের মোটরসাইকেলের মিটার শেটের ভিতরে গাড়ী পরিস্কার করার কাপড়ের ভিতর থেকে রহস্যজনকভাবে ২পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় পুলিশের সাথে হিরোকের কথাকাটাকাটি শুরু হলে পাশে থাকা স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। স্থানীয় অনেকে জানান, হিরোক মাদকসেবন ও ব্যবসার জড়িত নয় বলেই আমরা জানি। পুলিশ কেন তাকে আটক করলো আবার কেমনে ইয়াবা উদ্ধার করলো করলো আমরা বুঝতে পারছিনা। পরে অবশ্য স্থানীয়দের চাপে হিরোককে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এ ঘটনার পর হিরোক জানায়, আমার পিতা একজন মুক্তিযোদ্ধা, আমি কোনদিন মাদকের কোস কারবারে জড়িত ছিলাম না। বরং মাদক নির্মূল হোক সেটাই আমি চাই। পুলিশ কিভাবে আমার মোটরসাইকেল থেকে ইয়াবা ট্যাবলেট পেল আমার বুঝে আসছে না। কেউ হয়তো আমাকে ফাসাতে এবং আমার পিতার সম্মান নষ্ট করতে পুলিশকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে হয়রানি করছে। এটার সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া উচিত।
এবিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস জানায়, বিষয়টি আমি শুনেছি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি নেয়া হয়েছে। যে মোবাইল থেকে এ মাদকের তথ্য জানানো হয়েছে সেই মোবাইল নাম্বার দিয়ে তদন্ত চলছে। প্রকৃত ঘটনা উৎঘটন করে অপরাধীকে আইনের আওতায় আনা হবে। এ বিষয়ে এলাকাবাসী জানায় সুষ্টু তদন্তের মাধ্যমেই সম্ভব প্রকৃত অপরাধকে চিহ্নিত করা।