ঢাকায় কালবৈশাখী ঝড়ে ছয়জন নিহত

248

সমীকরণ প্রতিবেদন:
ভোর বেলা মেঘলা আকাশ। এরপর দুপুরে ভ্যাপসা গরম। বিকালে আবার মেঘলা আকাশ। সন্ধ্যায় দমকা হাওয়ার সঙ্গে ধূলিঝড়। পরে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি। তারপর শুরু প্রচ- ঝড়, সঙ্গে কোনো কোনো এলাকায় শিলাবৃষ্টি। বৈশাখের আগেই গতকাল রবিবার রাতে কালবৈশাখীর কবলে পড়েছে রাজধানী। আর তাতে প্রাণ গেছে চারজনের। এ ছাড়া বুড়িগঙ্গা নদীতে নৌকা ডুবে মারা গেছেন দুজন। আহত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থীসহ অন্তত অর্ধশত। গতকাল সন্ধ্যায় রাজধানীতে ঝড় বৃষ্টির সময় বিভিন্ন স্থানে গাছ ভেঙে পড়ে, বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে যায়। কোনো কোনো এলাকায় বিদ্যুতের তার ছিড়ে যায়। কয়েকটি এলাকায় গাছ ভেঙে পড়ে প্রাইভেটকার, অটোরিকশাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। নিহত হন চারজন। তাঁদের একজন চা দোকানি মো. হানিফ (৪৫) মাথায় ইট পড়ে মারা গেছেন পল্টন মোড়ে। আর মিরপুরের পশ্চিম শেওড়া পাড়ার ভবন থেকে ইট পড়ে মারা গেছেন দুলাল (৪০) নামে এক গাড়ি চালক। মিলি ডি কস্তা (৬০) নামের এক নারী গাছের ডাল পড়ে নিহত হয়েছেন সংসদ ভবন এলাকায়। হাসান নামের আরেকজন মাথায় ইট পড়ে নিহত হয়েছেন কদমতলীতে।
আহতদের মধ্যে আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রবি, ওমর ও মাহফুজ। তাঁরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএম হলের আবাসিক ছাত্র। অন্যরা হলো আল আমিন (১৫), আল আমিন (২১), আল আমিন (১৮), ওবায়দুল (১৪), ইবু (১৪), জোনায়েদ (১৫), আব্দুল খালেক (৫০), রাবেয়া (৩০), সাইফুল (৩০), বিল্লাল (৩৫), আবদুল আজিজ (২৮), মর্জিনা (১৮), আজিজ (৫১), মহিদুল (২৫), হোসেন (১৬)। তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। পুলিশ জানায়, সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে পল্টন মোড়ে চা দোকানি হানিফের মাথায় ইট পড়লে গুরুতর আহত হন তিনি। তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।