জ্বলে-পুড়ে খাক হচ্ছে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’

40

বিশ্ব ডেস্ক:
আগুন লেগেছে আমাজনে, ভয়াবহ আগুন। দিকে দিকে সে আগুনে পুড়ে কয়লা হচ্ছে শতসহস্র বর্গমাইলের চিরহরিৎ বন। প্রাণ বাঁচাতে আগুনের মুখে ছুটছে অবলা প্রাণিকুল, না পেরে পড়ে থাকছে অঙ্গার হয়ে। কিন্তু কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না সে আগুন, পুড়ে খাক হচ্ছে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’। প্রায় ৫৫ লাখ বর্গকিলোমিটার আয়তনের আমাজন বন আকারে ইউরোপ মহাদেশের প্রায় অর্ধেক। ব্রাজিলের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেশির ভাগ এলাকা, কলম্বিয়া, পেরুসহ দক্ষিণ আমেরিকার নয়টি দেশে বিস্তৃত এই বন। তবে এই বনের সিংহভাগ পড়েছে ব্রাজিলে। জীববৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ আমাজনের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে প্রশস্ত নদী আমাজনসহ অনেকগুলো নদ-নদী। এই বনে রয়েছে প্রায় ৩০ লাখ প্রজাতির উদ্ভিদ ও প্রাণী। এ ছাড়া প্রায় ১০ লাখ ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর বাস এখানে। বিশ্বের প্রায় ২০ শতাংশ অক্সিজেন তৈরি করে এই বন। গত এক দশকে আমাজনে এমন ভয়াবহ আগুন লাগেনি। ছবি: রয়টার্সগত এক দশকে আমাজনে এমন ভয়াবহ আগুন লাগেনি। ছবি: রয়টার্সআগুন লেগেছে আমাজনে, ভয়াবহ আগুন। দিকে দিকে সে আগুনে পুড়ে কয়লা হচ্ছে শতসহস্র বর্গমাইলের চিরহরিৎ বন। প্রাণ বাঁচাতে আগুনের মুখে ছুটছে অবলা প্রাণিকুল, না পেরে পড়ে থাকছে অঙ্গার হয়ে। কিন্তু কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না সে আগুন, পুড়ে খাক হচ্ছে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’। প্রায় ৫৫ লাখ বর্গকিলোমিটার আয়তনের আমাজন বন আকারে ইউরোপ মহাদেশের প্রায় অর্ধেক। ব্রাজিলের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় বেশির ভাগ এলাকা, কলম্বিয়া, পেরুসহ দক্ষিণ আমেরিকার নয়টি দেশে বিস্তৃত এই বন। তবে এই বনের সিংহভাগ পড়েছে ব্রাজিলে। জীববৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ আমাজনের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে প্রশস্ত নদী আমাজনসহ অনেকগুলো নদ-নদী। এই বনে রয়েছে প্রায় ৩০ লাখ প্রজাতির উদ্ভিদ ও প্রাণী। এ ছাড়া প্রায় ১০ লাখ ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর বাস এখানে। বিশ্বের প্রায় ২০ শতাংশ অক্সিজেন তৈরি করে এই বন। আমাজনে নানা কারণেই অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে। মানবসৃষ্ট কারণ ছাড়াও বজ্রপাত, প্রচ- গরমের সময় গাছের ডালে ডালে ঘর্ষণসহ নানা প্রাকৃতিক কারণও এসব অগ্নিকা-ের জন্য দায়ী। তবে সাম্প্রতিক সময়ে এই বনে আগুনের ঘটনা বেড়ে গেছে। ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্পেস রিসার্চের তথ্যমতে, গত বছর প্রথম আট মাসে আমাজনে আগুনের ঘটনা ঘটেছে ৪০ হাজার বার। এ বছর একই সময় ব্যবধানে, অর্থাৎ চলতি আগস্ট পর্যন্ত অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে ৭৪ হাজার বার। অর্থাৎ আগুনের ঘটনা বেড়েছে ৮৫ শতাংশ। এবার সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ব্রাজিলের উত্তরাঞ্চলীয় রোরাইমা, আক্রে, রন্ডোনিয়া ও আমাজোনাস অঙ্গরাজ্যের বনাঞ্চল। ২২ আগস্টের তথ্য অনুযায়ী, ওই দিন আমাজনের ব্রাজিল অংশে আড়াই হাজার এলাকায় আগুন জ্বলছিল। আমাজনের এই আগুনে কেবল বনই উজাড় হচ্ছে না, পরিবেশেরও ভয়াবহ ক্ষতি হচ্ছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের বায়ুম-ল পর্যবেক্ষণ সংস্থা কোপারনিকাস অ্যাটমোসফিয়ার মনিটরিং সার্ভিসের (ক্যামস) তথ্যমতে, আমাজনের আগুনের কারণে তৈরি হওয়া ধোঁয়া সুদূর আটলান্টিক উপকূল পর্যন্ত পৌঁছে যাচ্ছে। এই বন থেকে প্রায় তিন হাজার ২০০ কিলোমিটার দূরে সাও পাওলোর আকাশ ধোঁয়ায় কালো হয়ে গেছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই আগুনের কারণে বায়ুম-লে যোগ হচ্ছে বিপুল পরিমাণ কার্বন ডাই-অক্সাইড ও কার্বন মনোক্সাইড।