জীবননগর হাসাদাহ ইউনিয়নে ভিজিডির চাল বিতরণ ব্যাপক অনিয়ম ও কার্ড বানিজ্যর অভিযোগ

288

নিজস্ব প্রতিবেদক: জীবননগর উপজেলার হাসাদাহ ইউনিয়নে ভিজিডি কর্মসূচির আওতায় গরিব ও দুস্থদের মাঝে চাল বিতরন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০ঘটিকার সময় ইউনিয়নের ১৫০জন গরিব ও দুস্থ পরিবারের মধ্যো হাসাদাহ ইউনিয়ন পরিষদে এ চাল বিতরন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। তবে ভিজিডি কর্মসূচির চাল গরিব দুস্থদের প্রাপ্য হলেও ব্যাপক অনিয়ম, দূর্নীতি ও স্বজন প্রীতির কারনে তা পায়নি প্রকৃত গরিব দুস্থরা বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি টাকার বিনিময়ে ৭নং ওয়ার্ডের কার্ড ৬নং ওয়ার্ডের বজলুর রহমান এর স্ত্রী শাহানারা খাতুনকে দেয়া হয়েছে। অপরদিকে ৭নং ওয়ার্ডের রহিমা খাতুন-পিতা আক্তারুল, সুলেখা খাতুন-স্বামী মৃত জাহিদুল ইসলাম, মাজেদা খাতুন-স্বামী বিশারত আলী, ফাতেমা খাতুন-স্বামী আফতাব আলী, এদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ২৫০০-৩০০০ টাকার বিনিময়ে কার্ড প্রদান করেছে এমনই অভিযোগ উঠেছে। উক্ত বিষয়টি এলাকার সর্বসাধরনের মধ্যে জানাজানি হলে ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যর উপর সাধারন মানুষের যে আন্তরিকতা ছিল তা নষ্ট হয়। উক্ত বিষয়টি এলাকার মানুষের মুখে মুখে মুখরোচক ঘটনার সৃষ্টি হয়েছে। ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমানের সাথে কথা বললে তিনি বিষয়টি সম্পূর্ন অস্বীকার করে নিজে এড়িয়ে যেয়ে অন্যর উপরে দোষ চাপানোর চেষ্টা করেন। উক্ত বিষয়টি অত্র ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যন হাজী সিরাজুল হক এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন যে, এমন অভিযোগ আমিও শুনেছি  তবে ঘটনার সত্য মিথ্যা জানিনা। তাই এলাকার বক্তব্য এবং দাবী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উদ্ধর্তন কর্মকর্তাদের উপর উপরোক্ত বিষয়টি সু-বিবেচেনা পূর্বক সুষ্টু তদন্তের মাধ্যমে দোষী ব্যক্তিদের বিরূদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা এবং সেই সাথে এলাকার প্রকৃত গরিব ও দুস্থ ব্যক্তিদের মাঝে সরকার ঘোষিত বিনামূল্যে ভিজিডির কার্ডসহ ইউনিয়ন পরিষদের সকল যাবতীয় এই ধরনের সুযোগ সুবিধা  তারা যেন সরকারী নীতিমালা অনুযায়ী পায় তার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ জানান।