জীবননগর মোক্তারপুরের মনিরের কান্ড! রাতের আধারে গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টা : থানায় অভিযোগ

255

জীবননগর অফিস: জীবননগর উপজেলার বাঁকা ইউনিয়নের মোক্তারপুর গ্রামে এক গৃহবধুর ঘরে ঢুকে জোরপূর্বক ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের মনিরের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জানা গেছে, গত শুক্রবার জীবননগর উপজেলার মোক্তারপুর গ্রামের দরিদ্র এনামুল হকের স্ত্রী এক সন্তানের জননী ছালেহা খাতুন (৩০) এর ঘরে ঢুকে একই গ্রামের মৃত ফজলুল হকের ছেলে মনিরুজ্জামান মনির (৩২) জোরপুর্বক ধর্ষণ চেষ্টা করেছে বলে সাংবাদিকদের কাছে ও থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ছালেহা খাতুনের স্বামী এনামুল। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দরিদ্র এনামুল নিজের রুটি রুজির তাগিদে কাজের সন্ধানে দীর্ঘদিন ফরিদপুর থাকেন। একটি মাত্র সন্তানকে নিয়ে স্ত্রী ছালেহা খাতুন বাড়িতেই থাকেন। মনির প্রায় তাকে বিভিন্ন ধরনের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। একপর্যায়ে তার প্রলোভনে সাড়া না দেওয়ায় মনির তার পিছু ছাড়তে রাজি হয়নি। এবিষয় নিয়ে এনামুল বেশ কয়েকবার তাকে সতর্ক করেছেন তবু সে কোন কথায় কান না দিয়ে ছালেহার পিচু নিয়ে তাকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। প্রতিদিনের মত গত শুক্রবার খাওয়া দাওয়া শেষে সন্তানকে সাথে নিয়ে রাতে ছালেহা খাতুন নিজ ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত সাড়ে ১২টার সময়  ঘর থেকে বাহির হলে এই সুযোগে বাড়ির পাশে ওৎপেতে থাকা মনির তাকে মুখ চেপে ধরে ঘরের ভিতরে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এমন সময় নিজের সম্মান বাঁচাতে ছালেহা খাতুন চিৎকার করে। ছালেহার চিৎকার শুনে এলাকাবাসী ছুটে আসেন এবং মনির জনতার আভাস পেয়ে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মনির এই নিয়ে প্রায় তিনটি মেয়ের সংসার ভেঙ্গেছে। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে সমস্থ ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে থাকেন বলে এলাকাবাসী জানান। তারা আরো বলেন, মনিরের জন্য এ এলাকার উঠতি বয়সের মেয়েরা স্কুল কলেজে যেতে ভয় পায়। মনিরের এহেন কান্ডে এলাকার সাধারন মানুষ হতবাক হয়ে পড়েছেন।