জীবননগরে দুর্যোগ-সহনীয় ৫৪টি ঘর পেল গৃহহীনরা

42

মিঠুন মাহমুদ:
‘শেখ হাসিনার অবদান, টিআর-কাবিটা কর্মসূচির আওতায় দুর্যোগ-সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ’ স্লোগানে গ্রামীন অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ ও কাজের বিনিমিয়ে টাকা কর্মসূচির বিশেষ বরাদ্দের অর্থ দিয়ে তৈরি জীবননগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ৫৪ জন হতদরিদ্র ব্যক্তিদের মধ্যে দুর্যোগ-সহনীয় ঘর প্রদান করা হয়েছে।
জীবননগর উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান জানান, আগামী পাঁচ বছরে টিআর ও কাবিটার বিশেষ বরাদ্দের টাকা দিয়ে দরিদ্্রদের নতুন ঘর তৈরি করে দিচ্ছে সরকার। ৫ শ বর্গফুটের প্রতিটি ঘরে রয়েছে দুটি কক্ষ, একটি করিডোর, একটি বাথরুম ও একটি রান্নাঘর। প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ২ লাখ ৫৮ হাজার টাকা।
সীমান্ত ইউপি চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন ময়েন বলেন, ‘আমার সীমান্ত ইউনিয়নটি ভারতীয় সীমান্ত ঘেষা। তা ছাড়া এ অঞ্চলে যেসব ব্যক্তি সরকারি ঘর পেয়েছেন, তাঁরা একেবারে দরিদ্র মানুষ। তাই সবাই ঘর পেয়ে খুব খুশি।’
জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত প্রচেষ্টায় এ কর্মসূচিতে জীবননগর উপজেলায় টিআর-কাবিটার ৫৪টি ঘর বরাদ্দ এসেছে। আমরা ৫৪টি ঘরই দরিদ্র ব্যক্তিদের দিয়েছি। তাঁরা ঘর পেয়ে খুব খুশি। ডিসি স্যার নিজে উপস্থিত থেকে ঘরগুলোর চাবি দরিদ্র এ মানুষগুলোর মধ্যে বিতরণ করেছেন।’