জিরাট গ্রামের বছিরের পরিবারকে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পথ প্রাচীর দিয়ে বন্ধের অভিযোগ ৪৬ বছরের রাস্তা বন্ধ হওয়ায় পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন

366

O3 Jirat (2)দর্শনা অফিস: জিরাট গ্রামের বছির আহমেদ ও তার পরিবারকে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পথ প্রাচীর দিয়ে বন্ধ করে দেওয়ায় মানবেতর জীবন যাপন করছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গত ১২ আগষ্ট জিরাট গ্রামের মৃত সিরাজ উদ্দিনের ছেলে আরিফ, তারিক ও তাদের আত্মীয় রাজা আহমেদ ৮/৯ জন রাজ মিস্ত্রী এনে ১০ ফুট উচু প্রাচীর দিয়ে একই গ্রামের খোরশেদ আলীর ছেলে বছির আহমেদের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পথ বন্ধ করে দেয় এবং তার রান্না ঘর ভেঙ্গে দেয় বলে বছির জানায়। ফলে বছির আহমেদ ও তার পরিবার বাড়ি থেকে হতে বের হতে পারছে না। পার্শ্ববর্তী একটি মৃত ছোট দয়ালের ছেলে আমিরুল ইসলাম তার রান্না ঘরের পিছনের বেড়া খুলে দিয়ে বছির ও তার পরিবারের লোকজনকে রান্না ঘরের ভিতর দিয়ে বাড়ি থেকে বাইরে যাতায়াত করছে। বছির আহমেদ আরো জানায়, দীর্ঘ ৪৬ বছর ধরে এ বাড়িতে তারা বসবাস করেছে। সেই থেকে তারা বাড়ি থেকে বের হওয়ার রাস্তা হিসাবে ব্যবহার করে আসছে। হঠাৎ বাড়ি থেকে রের হওয়ার রাস্তা বন্ধ করে দেওয়াই সে তার পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। শুধু এতেই তারা ক্ষ্যান্ত হয়নি। আরিফ ও তারিকের ফুফাতো বোনের ছেলে রাজা আহম্মেদ পিতা নুরুল ইসলাম এর ছেলেকে দিয়ে বছির আহমেদ ও তার কলেজ পড়–য়া ছেলে জনি নামে চাঁদা বাজি মামলা করেছে। বছিরকে শায়েস্তা করতে আরিফ ও তারিক এসব করছে বলে বছির জানায়। এ বিষয় আরিফ ও তারিকের বাড়িতে খোজ করে ঘটনাটি তাদের কাছে জানার চেষ্টা করে তাদের পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে পারকৃষ্ণপুর মদনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস এ এম জাকারিয়া আলমের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি আমি জানি ঘটনাটি দুঃখজনক। উল্লেখ্য একই দাগে ৬৯ শতকের মধ্যে রওশন আলী গং এর ৩৫ শতক জমি এবং সিরাজ উদ্দিনের ৩৪ শতক জমির মালিক। এর মধ্যে রওশন আলী গং তার নাতি ছেলে বছির আহমেদকে সাড়ে ৩২ শতক জমি দান করে। সেই থেকে বছির দীর্ঘ ৪৬ বছর বসবাস করে আসছে। এ নিয়ে বিরোধের জের ধরে নানা ঘটনা ঘটে চলেছে। এ ব্যাপারে মানবধিকার কর্মীদের সহযোগিতা চেয়েছেন বছির আহমেদ।