চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ের প্রসেস সার্ভার : ওসমানের বিরুদ্ধে স্ত্রী নাছিমার মামলা

154

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ের প্রসেস সার্ভার ওসমান গনি শাহ’র বিরুদ্ধে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে স্ত্রী বিদ্যমান থাকা অবস্থায় তথ্য গোপন করে দ্বিতীয় বিয়ে ও স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগের ভিত্তিতে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। ওসমানের স্ত্রী নাছিমা খাতুন এ অভিযোগটি করেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুরের হামিদ শাহ’র ছেলে ওসমান গনি শাহ’র সাথে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক দীর্ঘ ২৭/২৮ বছর আগে বিবাহ হয় নাছিমা খাতুনের। বিবাহের পর ঘর সংসার করা কালে নাছিমার গর্ভে ৩টি সন্তান হয়। প্রায় ২বৎসর যাবৎ যৌতুকের দাবিতে তার স্বামী ওসমান গনি শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছে। ঘটনার তারিখের আনুমানিক ১৫ দিন আগে থেকে ২ লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে নাছিমাকে বাসায় রেখে আলাদা ভাবে রাত্রীযাপন করতো। আর বলে টাকা না দিলে তালাক দিয়ে দেবে। তার স্বামী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিসে রাত্রিযাপন করছেন জানতে পেরে তাকে আনতে যান। ওই সময় সকলের সামনেই তাকে মারধর করে এবং হুমকি ধামকী দেয়।
অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২৯/০৬/১৭ তারিখে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ১১ (গ) ধারায় চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়। তবে পুলিশ এখনও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ের প্রসেস সার্ভার ওসমান গনি শাহকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে পারেনি।