চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় মাদক প্রতিরোধে ব্যতিক্রম উদ্যোগ

202

অনুষ্ঠিত হবে সাইকেলিং প্রতিযোগিতা ও র‌্যালী
নিজস্ব প্রতিবেদক: এখন আলো ঝলমলে নগরীর প্রাণকেন্দ্র থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত গ্রামেও এখন মাদকের এর অবাধ বিচরণ। যুবসমাজকে ধংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে মাদক। অন্যদিকে, একসময় বাংলার বাঘ খ্যাত সাইকেল এখন আর তেমন দেখা যায় না। দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে সাইকেল। এমন পরিস্থিতিতে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারী এই মাদকের বিরুদ্ধে সাইকেলিং প্রতিযোগীতার আয়োজন করতে যাচ্ছে। হ্যাঁ, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হচ্ছে মাদকবিরোধি সাইকেলিং প্রতিযোগীতার। ব্যাতিক্রমধর্মী চিন্তা থেকে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারীর মাথায় আসে মাদক বিরোধী সাইকেলিং প্রতিযোগীতার। এই উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় প্রস্তুতিসভা। সভায় সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারী। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিন্ধান্ত হয় প্রতিযোগিতার জন্য সদর উপজেলাকে ৩ জনে ভাগ করা হবে। চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা ও আলুকদিয়া ইউনিয়নকে সদর জোন, পদ্মবিলা, মোমিনপুর ও কতুবপুর ইউনিয়নকে পশ্চিম জোন এবং শঙ্করচন্দ্র, বেগমপুর ও তিতুদহকে পূর্ব জোনে বিভক্ত করা হয়েছে।
মাদকের বিরুদ্ধে তীব্র গণআন্দোলন গড়ে তুলে যুব সমাজকে ধ্বংসের হাত থেকে মুক্ত করতে গতিসম্পন্ন সাইকেলিং প্রতিযোগিতাকে ৯টি ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করা হয়েছে। যার মধ্যে আছে সদর উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩য় -৫ম শ্রেণী (ছাত্র) “ক” গ্রুপ, ৬ষ্ঠ -১০ম শ্রেণী (ছাত্র) “খ”গ্রুপ, ৬ষ্ঠ- ১০ম শ্রেণী (ছাত্রী) “গ”গ্রুপ, একাদশ থেকে তদুর্দ্ধ (ছাত্র) “ঘ” গ্রুপ, একাদশ থেকে তদুর্দ্ধ (ছাত্রী) “ঙ” গ্রুপ, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনূর্ধ-৪০ (শিক্ষক মন্ডলী) “চ” গ্রুপ, ৪০ উর্দ্ধো (শিক্ষক মন্ডলী) “ছ” গ্রুপ, সরকারি-বেসরকারি চাকুরীজীবিসহ অন্যান্য পেশাজীবি অনূর্ধ-৪০ “জ” গ্রুপ এবং সরকারি- বেসরকারি চাকুরীজীবিসহ অন্যান্য পেশাজীবি ৪০ উর্দ্ধো “ঝ” গ্রুপে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবেন।
সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৮ জুলাই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন হতে পারে। উদ্বোধনী দিনে ৩টি জোনের প্রতিযোগিতা একযোগে সকাল ১০টা থেকে আলাদা আলাদা বিচারকদের অধীনে শুরু হবে। প্রতিযোগিতার ৯টি ক্যাটাগরিতে ১ম, ২য় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী ২৭ জন বিজয়ী পরবর্তী দিন চুড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবে। ওই দিনই সমাপনি ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। সমাপনি দিনে প্রতিযোগীগণ ছাড়াও জেলা সদরের সর্বস্তরের সুধীজন ও সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গকে আমন্ত্রন জানানো হবে বলে জানান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াশীমুল বারী।
প্রস্তুতি সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারি কমিশনার (ভুমি) মাসুদুল আলম, চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শাহজাহান আালী, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক আসলাম হোসেন, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ কুমার সাহা, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মৌমিতা পারভীন, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, দৈনিক কালের কন্ঠ ও ইন্ডিপেনডেন্ট টিভির জেলা প্রতিনিধি অ্যাড. মানিক আকবর, প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা জেলা ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শাহ আলম সনি, প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান প্রশিক্ষক চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের ক্রিড়া সম্পাদক ইসলাম রকিব সাতাঁর, উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার সোহেল আহমেদ, বেগমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী হোসেন, আলুকদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দীন, তিতুদহ ইউপি সচিব জিয়াউর রহমান, মোমিনপুর ইউপি সচিব মোস্তাফিজুর রহমান, পদ্মাবিলা ইউপি সচিব শাহাজামাল, সাতাঁর প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ইনচার্জ নাসির আহাদ জোয়ার্দ্দার, তেতুল শেখ কলেজের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। প্রতিযোগিতার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে সদর উপজেলা অফিসারের কার্যালয়ে যোগাযোগ করা যেতে পারে।