চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মোমবাতি প্রজ্জ্বলন

315

সরকারি কোষাগার থেকে বেতন ভাতা পেনশন সুবিধা প্রদানের দাবিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক: পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীগণের বেতন-ভাতা ও পেনশন সুবিধা রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে প্রদানের দাবিতে সড়ক বাতি বন্ধ রেখে ঘন্টাব্যাপী মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচী পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলার সকল পৌরসভার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে জলন্ত মোমবাতি হাতে দাড়িয়ে তারা কেন্দ্র ঘোষিত এ কর্মসূচী পালন করে। পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার আয়োজনে সন্ধ্যার পর পরই চুয়াডাঙ্গা, আলমডাঙ্গা, দর্শনা ও জীবননগর পৌরসভার অন্তত দু’শতাধিত কর্মকর্তা-কর্মচারী সেখানে হাজির হন। এ সময় নিজেদের দাবি ও সুবিধা-অসুবিধা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন জেলা পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আয়ুব আলী বিশ্বাস, সহ সভাপতি আনিছুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেন, উপদেষ্টা মোয়াজ্জেম হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলা সম্পাদিকা সাজেদা বেগম, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান কাউছার, আলমডাঙ্গা পৌরসভা কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম প্রমূখ।
বক্তারা বলেন, ‘১০-১১ মাসের বেশি সময় ধরে বেতন-ভাতাদি বকেয়া থাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে আমরা মানবেতর জীবন যাপন করছি।’ তারা আরো বলেন, ‘স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অধীনে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ওয়াসা, সমবায় অধিদপ্তরসহ অনেক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী সরকারের রাজস্ব তহবিল থেকে বেতন-ভাতাসহ পেনশন সুবিধা দেয়া হয়। অথচ জনসেবকের মূল দায়িত্ব পালনকারী সংস্থা স্থানীয় সরকারের মূল প্রতিষ্ঠান পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ও আনুতোষিক পৌরসভার রাজস্ব তাহবিল থেকে প্রদান করা হয়ে থাকে। ফলে দেশের অনেক পৌরসভায় বেতন-ভাতা অনিয়মিত। পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চাকুরী থেকে অবসরগ্রহনের পর আনুতোষিকসহ অন্যান্য আর্থিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে অসহায় ও মানবেতন জীবন যাপন করছে। এতে আধুনিক নগরায়নে ও ডিজিটাল দেশ গঠণের অংশীদার প্রায় ২০ থেকে ২৫ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। পাশাপাশি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্বেও জনগণের নিকট থেকে উন্নয়ন ও সেবা গৃহীত কর ও অর্থ হতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করার পর জনগণের সেবা প্রদানসহ পৌর এলাকার উন্নয়ন স্থানীয় কর্তৃপক্ষের দ্বারা ত্বরান্বিত করা অধিকাংশ পৌরসভার ক্ষেত্রে সম্ভব হচ্ছে না।’


উল্লেখ্য, আগামী ১৮ ডিসেম্বর সারা দেশের ন্যায় একযোগে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরে নিজেদের সন্তানদের নিয়ে মানবন্ধন করবে পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্যোগে সরকারী কোষাগার হতে বেতন-ভাতার দাবিতে সড়ক বাতি বন্ধ রেখে ঘন্টা ব্যাপী মোমবাতি প্রজ্জলন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার রাতে জেলার পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীরা এ কর্মসূচি পালন করেন। এসময় জেলা পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি তফিকুল ইসলাম, মেহেরপুর পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি সেলিম রেজা, সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হোসেন দিপু, সদস্য হাবিবুর রহমান, শফিউদ্দিন, রকিবুল ইসলাম মিঠুসহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন।