চুয়াডাঙ্গা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা অনির্দিষ্টকালের

309

পরিবহন ধর্মঘটের ৩য় দিন অতিবাহিত : দূর্ভোগ চরমে
সোহলে রানা ডালিম: ঝিনাইদহ জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি কর্তৃক চুয়াডাঙ্গা থেকে ছেড়ে যাওয়া যাত্রীবাহী বাস চলাচলে বাধা দেয়ার প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটে’র তৃতীয় দিন অতিবাহিত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা এ ধর্মঘটে গতকাল শনিবার গভীর রাত পর্যন্ত আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার সব ধরনের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। নেতার বলছেন, ন্যায্য দাবি না মানা পর্যন্ত কঠোরভাবে তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। সব মিলিয়ে চরোম দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ। গতকাল সন্ধ্যার দিকে শহরের একাডেমি মোড়ে মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির কর্মকর্তা হাফিজুর রাহমান নামে একজনের সাথে কথা হলে এসময় তিনি কষ্ট নিয়ে জানান, কোম্পানির কাজে সকালে কুষ্টিয়া থেকে ঝিনাইদহ হয়ে ভেঙ্গে ভেঙ্গে চুয়াডাঙ্গাতে এসেছেন। সারদিন চুয়াডাঙ্গা অফিসের কাজ সেরে এখন সন্ধ্যায় একাডেমি মোড় থেকে সিএনজিতে উঠবেন। তিনি অনুমান করতে পারছেন না আলমডাঙ্গা থেকে কুষ্টিয়ার কনো গাড়ি পাবেন কিনা? এভাবে তার কষ্টের কথা বর্ণনা করছিলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, দেশে যেটাই হোক, বাংলাদেশ ইন্ডিয়ার সাথে ক্রিকেটে জিতলেও সাধারণ মানুষ কষ্ট পায়। আবার আমরা উন্নায়নশীল দেশের কাতারে নাম লোখালেও সাধারণ মানুষ কষ্ট পায়। তার কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, যেটাই ঘটুক সকলে একসাথে সড়ক অবরোধ করে আমরা আনন্দ বেদনা পালন করি। আর সে সময় বন্ধ হয়ে যায় সড়কে চলাচলরত যানবাহনগুলোর স্বাভাবিক পরিবেশ।