চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদায় গুড় ব্যবসায়ীর লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে পালানোর সময় বিপত্তি অজ্ঞানপাটির ৩ সদস্যকে এলাকাবাসীর গণধোলাই : থানায় মামলা

190

শহর প্রতিবেদক/দামুড়হুদা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর কাঠালতলা এলাকা থেকে দুই খেজুর গুড় ব্যবসায়ী আলেফ উদ্দিন (৫০) ও সাঈদকে (৪৫) অজ্ঞান করে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী হাতে ধরা পড়ে অজ্ঞানপার্টির ৩ সদস্য গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জয়রামপুর কাঠালতলায় এ ঘটনাটি ঘটে। পরে দু’ব্যবসায়ীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় দামুড়হুদা থানা পুলিশ তাদেরকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই আবু জার স্থানীয় এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে জানান, সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার আলেফ উদ্দিন ও একই উপজেলার সোহরাব আলীর ছেলে সাঈদ চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় অবস্থিত খেজুর গুড় কেনার জন্য জয়রামপুর রেল স্টেশনে মোকামে যাওয়ার জন্য গতকাল শনিবার খুলনাগামী সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনযোগে চুয়াডাঙ্গা রেল স্টেশনে নামে। ট্রেনে আসার সময় তাদের সঙ্গে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বহুলিয়া গ্রামের মরহুম সাত্তার আলীর ছেলে রহিম সরদার (৪০), রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার আব্দুল্লাহপুর গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে ফুল মিয়া (৩৮) ও নাটোর জেলার বাঘাদিয়াপাড়া উপজেলার কালিমপুর গ্রামের মোবারক হোসেনের ছেলে সানোয়ার হোসেন (৪২) এর সঙ্গে তাদের সখ্যতা গড়ে ওঠে। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ওই ৫জন জয়রামপুর গুড়ের মোকামে যাওয়ার জন্য একটি চার্জার অটোরিক্সা ভাড়া করে চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে। পরে  সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জয়রামপুর কাঁঠালতলায় রহিম সরদার, ফুল মিয়া ও সানোয়ার হোসেন অটো রিক্সা থেকে নেমে চলে যাওয়ার সময় অটো রিক্সা চালক পিছনে তাকিয়ে দেখতে পায় তাদের সঙ্গের যাত্রী দুই জন অচেতন অবস্থায় অটো রিক্সার ভিতরে পড়ে আছে। তৎক্ষনাৎ অটো চালক বিষয়টি এলাকার স্থানীয় লোকজনকে জানালে তারা একত্রিত হয়ে অজ্ঞাত পার্টির সদস্যদের পিছু নিয়ে গ্রামের মাঠের মধ্য থেকে আটক করে গণধোলাই দেয়। পরে  জিজ্ঞাবাদের এক পর্যায়ে তারা স্বীকার করে যে তারা উল্লাপাড়া রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্রেনে ওঠার পর থেকেই তাদেরকে পিছু নেয়। তাদের দুই জনের কাছ থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা নেওয়ার কথাও তারা জানায়। এরপর এলাকার স্থানীয় লোকজন দামুড়হুদা মডেল থানায় জানালে পুলিশ তাদের এবং  অসুস্থ্য দুই জন খেজুর গুড় ব্যবসায়ীকে উদ্ধার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে  ভর্তি করে।এবিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান জানান,ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বলেন, স্থানিয়দের সহযোগিতায় অজ্ঞাত পার্টির ৩ সদস্যকে আমরা আটক করেছি।গতকালই বিকালে গুড় ব্যবসায়ীদের এক সহকর্মী সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার শিতল পরমনির ছেলে লুৎফর রহমান (৪৫) থানায় উপস্থিত হয়ে আটক ৩ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আজ তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।