চুয়াডাঙ্গায় সোনার দোকানে রহস্যজনক চুরি!

769

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গার বড় বাজারে দিন দুপুরে সোনার দোকানের তালা খুলে গহনা চুরির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে শহরের বড় বাজার ট্রাফিক মোড়ের সামনে অবস্থিত মডার্ন জুয়েলার্স নামে একটি সোনার দোকানে এই চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ দোকানের দুই কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিলেও পরে তাদের ছেড়ে দেয়। পুলিশ বলছে এই চুরির ঘটনা নিয়ে ধোয়াশা সৃুষ্ট হয়েছে। এটি একটি রহস্যজনক চুরি।
জানা যায়, গতকাল বেলা সাড়ে ৩টার দিকে দোকান মালিক দোকানে তালা দিয়ে বাড়িতে দুপুরে খাবার খেতে যায়। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ফিরে এসে দেখে দোকানের তালা খোলা। দোকানে প্রবেশ করে তিনি দেখতে পান দোকানের শোকেস থেকে চুরি হয়েছে বিভিন্ন ধরনের সোনার চেইন, কানের দুলসহ প্রায় ২৫/৩০ ভরি সোনার গহনা।
দোকান মালিক আরিফুজ্জামান বাবু বলেন, দুপুরের খাবারের জন্য ঘন্টা খানেক দোকান বন্ধ রেখে বাড়িতে গিয়েছিলাম আর ফিরে এসে দেখি এরই মধ্যে দোকানের তালা খোলা, ভিতরে ঢুকে দেখি লুট হয়েছে সবকিছু। এদিকে, এ ঘটনার দুই বছর পূর্বে আরো একবার এই মডার্ণ জুয়েলার্সে প্রায় অর্ধ শতাধিক ভরি সোনার গহনা চুরি হয়েছিল বলেও জানায় তিনি।
আধুনিকযুগে সার্বক্ষণিক নজরদারিতে প্রাই সবখানইে ব্যবহৃত হয় সিসি ক্যামেরা। এই দোকানের ভিতরেও ছিল ৪টা সিসি ক্যামেরা তবে প্রয়োজনে পাশে পাওয়া যায়নি সেগুলোকে। সিসি ক্যামেরার কথা জানতে চাইলে দোকানের মালিক বলেন সিসি ক্যামেরাগুলো বন্ধ ছিল।
এদিকে, ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. কলিমুল্লাহ, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেলোয়ার হোসেন খানসহ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা।
চুয়াডাঙ্গা শহরের প্রাণকেন্দ্রে দিনে দুপুরে দুঃসাহসিক এ চুরির বিষয়ে চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. কলিমুল্লাহ বলেন, দিনে দুপুরে লোকসম্মুখে এমন চুরির ঘটনা দুঃসাহসিক ও রহস্যজনক। তবে প্রকৃত ঘটনা উৎঘাটনে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দেলোয়ার হোসেন খান জানান, মডার্ণ জুয়েলার্সের চুরির ঘটনায় আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তবে এ চুরির ঘটনাটি রহস্যজনক মনে হয়েছে। আমরা তদন্ত করছি। তদন্ত করার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।