চুয়াডাঙ্গায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই মাদক ব্যবসায়ীর কারাদণ্ড

47

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় ভ্রাম্যমাণ আদালত দুই মাদক ব্যবসায়ীকে কারাদণ্ড প্রদান করেছেন। সাজাপ্রাপ্তরা হলেন দামুড়হুদার গোপালপুর দলকাবীলপাড়ার মাতু ফকিরের স্ত্রী বেলী খাতুন (৪৫) ও চুয়াডাঙ্গা শহরতলীর দৌলতদিয়াড় দক্ষিণপাড়ার মৃত আবু তালেবের ছেলে নাজমুল ইসলাম (৩০)। আটককৃতদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা পৃথক দুই স্থানে অভিযান চালিয়ে ওই দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। গতকাল শনিবার সকালে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপপরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ ও সহকারী উপপরিদর্শক আকবর হোসেন ফোর্স নিয়ে দামুড়হুদার গোপালপুর দলকাবীল পাড়ার মাতু ফকিরের বাড়িতে অভিযান চালান। এ সময় বেলী খাতুনকে আটকের পর তাঁর স্বীকারোক্তিতে তাঁদের ঘরে তল্লাশী চালিয়ে এক কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আটক বেলী খাতুনকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।
অপর দিকে, একই অভিযানিক দল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গা শহরতলীর দৌলতদিয়াড় দক্ষিণপাড়ার নাজমুল ইসলামের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাঁকে আটক করেন। আটকের পার নাজমুল ইমলামের দেহ তল্লাশী করে তাঁর কাজ থেকে ২ অ্যাম্পুল ভারতীয় বুপ্রেনরফাইন ইনজেকশন উদ্ধার করা হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আটককৃত নাজমুল ইসলামকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। সহযোগিতায় ছিলেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বেঞ্চ সহকারী আব্দুল লতিফ।