চুয়াডাঙ্গায় পাঁচদিন ব্যাপী বৃক্ষমেলার উদ্বোধনকালে জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ

239

বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে সবুজায়ন ও পরিবেশগত উন্নয়ন সম্ভব
নিজস্ব প্রতিবেদক: সবুজে বাঁচি, সবুজ বাঁচাই, নগর-প্রাণ-প্রকৃতি সাজাই, অপ্রতিরোধ্য দেশের অগ্রযাত্রা, ফলের পুষ্টি দেবে নতুন মাত্রা’ এ প্রতিপাদ্যে চুয়াডাঙ্গায় পাঁচদিন ব্যাপী ফলদ বৃক্ষরোপণ পক্ষ, বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষমেলার উদ্বোধন হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। এরপর জেলা শিল্পকলা একাডেমীর মুক্তমঞ্চে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ। বৃক্ষ নিধন, জলাভূমি ভরাট, পাহাড় কাটা, নদী দূষণ ও কৃষি জমিতে রাসায়নিকের যথেচ্ছ ব্যবহার বন্ধসহ পরিবেশ সুরক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ বলেন- পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব সবার। আর পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি জোরদার করার মাধ্যমে দেশের সবুজায়ন নিশ্চিত করতে হবে, পরিবেশগত সুরক্ষা এবং জীববৈচিত্র রক্ষায় গুরুত্ব দিতে হবে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য এসডিজি বাস্তবায়ন, দূষণমুক্ত, পরিবেশবান্ধব সবুজ অর্থনীতি গড়তে হলে আমাদের পরিবেশ সংরক্ষণকে মূল ধারায় নিয়ে আসতে হবে। মনে রাখতে হবে গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণের প্রভাবে জলবায়ুর পরিবর্তন ঘটছে। এই পরিস্থিতিতে টেকসই উন্নয়নের মাধ্যমে সবুজ অর্থনীতি গড়ার কোনো বিকল্প নেই। এসময় তিনি আরো বলেন চলতি বছর দেশে বজ্রপাতে মৃত্যু হয়েছে সবচেয়ে বেশি। সে চিন্তা করেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে তালের চারা রোপণের নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা গতবারই তাল বীজ রোপণ করেছিলাম। এবার চুয়াডাঙ্গাতে ১০ লাখ তাল বীজ রোপণ করা হবে। সময়মত তাল বীজ সংগ্রহ করা হবে। একইসাথে তেতুঁল ও খেজুর গাছও লাগানো হবে। বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে সবুজায়ন ও পরিবেশগত উন্নয়ন সম্ভব উল্লেখ করেন প্রধান অতিথি।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চুয়াডাঙ্গার উপ-পরিচালক নাঈম-আস্-সাকীবের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. কলিমুল্লাহ, সামাজিক বন বিভাগ কুষ্টিয়া অঞ্চলের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আসলাম মজুমদার, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর সিদ্দিকুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান বীর প্রতিক। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মুন্সি আবু সাঈফ।
পরে অতিথিরা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে আগত শিক্ষার্থীদের হাতে একটি করে বৃক্ষ তুলে দেন। এ সময় বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারী কর্মকর্তা, এনজিও প্রতিনিধিগণ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীগণ, নার্সারীর মালিকগণসহ বৃক্ষরোপণ ও বৃক্ষমেলা সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও সামাজিক বন বিভাগের আয়োজনে ১৮টি ষ্টল বিশিষ্ট এ বৃক্ষমেলা চলবে আগামী ৩ আগস্ট পর্যন্ত।