চুয়াডাঙ্গায় চরমপন্থী দলের পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে বিপত্তি চাঁদাবাজকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

239

15578953_161909254288014_8330263276966113765_n

শহর প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কালুরপোল গ্রামে চরমপন্থী দলের পরিচয়ে চাঁদাবাজি করার সময় তিনজনকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে গ্রামবাসী। গতকাল রোববার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কালুরপোল গ্রামে এঘটনা ঘটে। গণপিটুনির শিকার তিনজন নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠন পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির সক্রিয় সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ। আটক ব্যক্তিরা হলেন-সদর উপজেলার ছয়ঘরিয়া গ্রামের আনিস উদ্দীনের ছেলে আব্দুল মোমিন (৩৫), শাহাপুর গ্রামের জাহিদ ইসলামের ছেলে নুরুজ্জামান (৩২) ও বহালগাছি গ্রামের বাবুল মৃধার ছেলে মানিক মৃধা (৩১)। পুলিশ সুত্রে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কালুরপোল গ্রামের বরকত উল্লাহ নামে এক ধনাঢ্য কৃষকের কাছে গত কয়েকদিন ধরে চরমপন্থী দলের পরিচয়ে কয়েকজন ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। পরে অনেক দেনদরবার করে তা ১লাখে দাঁড়ায়। রোববার দুপুরে দাবিকৃত চাঁদার টাকা নিতে মোমিন, নুরুজ্জামান ও মানিক মৃধা বরকত উল্লাহর বাড়িতে গেলে গ্রামের লোকজন তাদের আটক করে গণপিটুনি দেয়। পরে খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের আটক করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় নিয়ে আসে। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোজাম্মেল হক জানান, গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠন পূর্ব-বাংলা কমিউনিস্ট পাটির সক্রিয় সদস্য। এদের মধ্যে সিরাজের বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজি ও বোমবাজিসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।