চুয়াডাঙ্গায় আলোচিত মদ ব্যবসায়ী চম্পা রানী গ্রেপ্তার

49

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে সদর উপজেলার ভালাইপুর মোড়ের আলোচিত মদ ব্যবসায়ী চম্পা রানীকে বাংলা মদসহ গ্রেপ্তার করেছে সদর থানার পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভালাইপুর এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত আসামির নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মায়া রানী ওরফে চম্পা (৩৮) চুয়াডাঙ্গা বড় বাজার এলাকার সুইপার পট্টির মেওলা লালের স্ত্রী।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপারের নির্দেশে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদের নেতৃত্বে সদর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর আলমসহ পুলিশের একটি দল মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানকালে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ভালাইপুর মোড়ের আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী হরিজন সম্প্রদায়ের মায়া রানী ওরফে চম্পাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ সময় গ্রেপ্তারকৃত আসামির এক সহযোগী পালিয়ে গেলেও গ্রেপ্তারকৃত আসামির কাছ থকে ৩০ লিটার বাংলা মদ জব্দ করে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বহালগাছির কোরবান ডোমকে পলাতক দেখিয়ে গ্রেপ্তারকৃত চম্পা রানীর নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছে।
বাংলা মদসহ চম্পা রানীকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ওসি আবু জিহাদ খান বলেন, হরিজন সম্প্রদায়ের বেশ কিছু লোক মদ খাওয়ার লাইসেন্সকে কাজে লাগিয়ে অবৈধভাবে মদের ব্যবসা করে আসছেন। হরিজন সম্প্রদায়ের ওই চক্রটির স্বেচ্ছাচারমূলক এবং ঔদ্ধত্যপূর্ণ কর্মকাণ্ডের ফলে সমাজের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। ফলে তাদের এ ধরণের বেআইনি কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ কঠোর অবস্থান নিয়েছে।