চুয়াডাঙ্গার মাথাভাঙ্গা সেতুতে দীর্ঘ যানজট, ভোগান্তি

34

বিশেষ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরের সংযোগ স্থাপনকারী প্রধান ব্রিজ ‘মাথাভাঙ্গা সেতু’তে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর মালবাহী ট্রাক ব্যতীত সব প্রকার যানবাহন চলাচলের জন্য এ ব্রিজ খুলে দেওয়ায় প্রতিদিন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দীর্ঘ যানজট লাগে সেতুর দুই প্রান্তে। ১০ টনের অধিক ভারী যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও অনেক সময় জেনে-না জেনে ট্রাকচালকেরা সেতুতে ওঠার চেষ্টা করেন। এ সময় সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ তাঁদের ফিরে যেতে বললে গাড়িটি পিছিয়ে নিতে গেলে অন্যান্য যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়। এর ফলে ভোগান্তিতে পড়তে হয় যাত্রী ও পথচারীদের। বিশেষ করে ঈদকে সামনে রেখে যেন আরও অধিক হারে যানজট দেখা দিচ্ছে এ সেতুটিতে। গতকাল শনিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বেশ কয়েকবার মাথাভাঙ্গা সেতুর দুই প্রান্তের যানজট দেখা দেয়। প্রবেশ মুখে রাস্তার ওপর আরসিসি পিলার থাকায় সব প্রকার যানবাহনকে এক এক করে সারিবদ্ধভাবে সেতু পার হতে হয়। এতে করে প্রায়ই চুয়াডাঙ্গা বড় বাজার-চৌরাস্তা-নিউ মার্কেট পর্যন্ত বাস-ট্রাক, ভ্যান-রিকশাা ও ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকের লম্বা সারি দেখা যায়। অপর দিকে সেতু থেকে দৌলাতদিয়াড় ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সামনে পর্যন্ত যানজট লেগেই থাকে। এ ছাড়া সারা দিন কচ্ছপগতিতে পার হতে হয় গাড়িগুলোকে। যানজট নিরসনে সার্বক্ষণিক তৎপর দেখা যায় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের। নিয়মিত চলাচলকারী এক পথচারী জানান, তিনি প্রতিদিন অফিসের কাজ শেষে মাথাভাঙ্গা সেতু পার হয়ে কোর্ট মোড়ে নিজ বাসভবনে ফেরেন। ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকে সেতুটি পার হতে স্বাভাবিকভাবে সময় লাগে তিন মিনিট। কিন্তু গতকাল শনিবার বিকেলে তীব্র যানজটের কারণে তাঁকে পায়ে হেঁটে সেতু পার হতে হয়েছে।