চালকের নির্দেশনা ছাড়াই চলবে গাড়ি

20

প্রযুক্তি ডেস্ক:
স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তির গাড়ি আসছে ‘শিগগিরই’। চলতি বছরের শেষ দিকে স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তির গাড়ি তৈরিতে করতে সক্ষম হবে টেসলা। এমনটাই জানিয়েছেন টেসলার প্রতিষ্ঠাতা এলন মাস্ক। এলন মাস্ক বলেন, স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি ব্যবহারে আমরা লেভেল-ফাইভ পর্যায়ে রয়েছি। আমরা প্রায় সাফল্যের াছাকাছি চলে এসেছি। যেখানে চালকের নির্দেশনা ছাড়াই গাড়ি চলতে পারবে। বর্তমানে এই প্রযুক্তিতে টেসলা লেভেল-টু পর্যায়ে রয়েছে। যেখানে স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হলে চালকের কমান্ড আবশ্যক। ভবিষ্যতে নতুন কোন হার্ডওয়্যারের সংযোজন ছাড়াই শুধু সফটওয়্যার আপডেটের মাধ্যমে সহজে লেভেল-ফাইভ পর্যায়ের স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি ব্যবহার করা যাবে বলে দাবি করেছেন এলন মাস্ক।
সাংহাইয়ে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কনফারেন্সে এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, লেভেল ফাইভের কার্যকারিতা নিয়ে আমার অগাধ বিশ্বাস যে, লেভেল ফাউভ বা পুরো স্বয়ংক্রিয়তা খুব তাড়াতাড়িই আসবে। তিনি বলেন, টেসলা এ বিষয়ে অনেকটা এগিয়ে আছে। আমি আশাবাদী এ বছরের মধ্যেই আমরা লেভেল ফাইভ পর্যায়ের স্বয়ংক্রিয়তা প্রাথমিক পর্যায়ে বাস্তবায়িত করতে পারব। এই স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি বাস্তবায়নে আর বড় কোন বাধা নেই। কিছু ছোট ছোট ভুল ছাড়া। এই ছোট ছোট সমস্যাগুলো সমাধান করেই সম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে হবে। ছোট ছোট সমস্যাগুলোর দীর্ঘসূত্রতা খুঁজে বের করতে আমাদের একবার প্রয়োগগত টেস্ট করা দরকার, বলছিলেন মাস্ক। আইএইচএস মারকিট গবেষক টিম উরকুহার্ট টেসলার এই লেভেল ফাইভ স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তিকে “রহস্যময় এবং মুগ্ধতাকর” উল্লেখ করে এলন মাস্কের উদ্ধৃতিকে সাহসী বলে আখ্যা দিয়েছেন। এমন কি অনেক গ্রাহকই টেসলার উন্মোচিত প্রযুক্তিগুলোর অপব্যবহার করছে বলেও দাবি করেন উরকুহার্ট। টেসলার লেভেল-টু পর্যায়ে গাড়ির অটোপাইলটিং বা স্বয়ংক্রিয়তা আমার কাছে প্রশ্নবিদ্ধ্ব হলেও আমি মনে করি লেভেল-ফাইভ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোন অযাচিত বিপত্তি থাকবে না, যোগ করেন তিনি। টেসলা নির্ভরযোগ্যভাবে এই স্ব-স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি বাজারে নিয়ে আসলেও বর্তমান বিশ্ব এই প্রযুক্তির সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়ার জন্য প্রস্তুত নয় এখনও।