চলে গেলেন সবার প্রিয় আসর মাতানো ফেরদৌস ওয়ারা সুন্না

112

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা জেলার পরিচিত মুখ, সদা মিষ্টভাষী জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ফেরদৌস ওয়ারা সুন্না আর নেই। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন। গতকাল বুধবার রাত ১০টা ১৫ মিনিটে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে, ১ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় জান্নাতুল মাওলা জামে মসজিদে জানাজার নামাজ শেষে জান্নাতুল মাওলা কবরস্থানে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে দাফনকার্য সম্পন্ন করা হবে বলে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন নিশ্চিত করেছেন। এদিকে, সদা মিষ্টভাষী ফেরদৌস ওয়ারা সুন্না সবার কাছে আসর মাতানো মানুষ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তিনি যেখানেই বসতেন, গল্প, আড্ডা আর হৈ-হুল্লোড়ে আসর জমিয়ে তুলতেন। চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার গুলশানপাড়ায় নিজের প্রতিষ্ঠিত মসজিদে ফজরের নামাজ শেষে তিনি প্রতিদিন শহরে হাঁটতে বের হতেন। এ সময় তিনি বিভিন্ন চায়ের দোকানে বসতেন, আর জমিয়ে তুলতেন আড্ডা। এই করোনা পরিস্থিতিতেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই তাঁকে বিভিন্ন জায়গায় আড্ডার আসর জমাতে দেখা গেছে। তাঁর এমন হঠাৎ প্রয়াণে চুয়াডাঙ্গা শহরসহ রাজনৈতিক ও সামজিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের গুলশানপাড়ার বাসিন্দা ফেরদৌস ওয়ারা সুন্না গত কয়েকদিন যাবত জ্বর, কাঁশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। শরীরে করোনা উপসর্গ থাকার কারণে তিনি অসুস্থ হওয়ার পর থেকেই হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে গত সোমবার ফেরদৌস ওয়ারা সুন্নার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। গত মঙ্গলবার সে ফলাফল আসে। রিপোর্টে ফেরদৌস ওয়ারা সুন্নার করোনা পজিটিভ আসে। এরমধ্যে গতকাল বুধবার বিকেলে হঠাৎ করে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় এবং শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে পরিবারের সদস্যরা তাঁকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি করে। এ সময় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শামীম কবির তাঁকে সার্বিক চিকিৎসা প্রদান শেষে আইসোলেশনে রাখেন। খবর পেয়ে সন্ধ্যার দিকে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন হাসপাতালে ছুটে যান এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তাঁর শারীরিক অবস্থার খবরা-খবর নেন। এ সময় দূর থেকে আওয়ামী লীগের নেতা সুন্না আগের থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থা ভালো বলেই সাবেক মেয়র টোটন জোয়ার্দ্দারকে জানান। কিন্তু এরপর আবার তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে রেফার্ড করেন। ঢাকায় নেওয়ার প্রস্তুতিকালেই রাত ১০টা ১৫ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
এদিকে, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ফেরদৌস ওয়ারা সুন্নার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন, সহসভাপতি খুস্তার জামিল, সহসভাপতি আশাদুল ইসলাম বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান ও মুফতি মাসুদ উজ্জামান লিটু বিশ্বাস, কোষাধ্যক্ষ আলী রেজা সজল, দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস, উপ-প্রচার সম্পাদক মো. শওকত আলী বিশ্বাস, যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আরশাদ উদ্দীন আহমেদ চন্দন, জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাড. বেলাল হোসেন, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জানিফসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়া দৈনিক সময়ের সমীকরণ পরিবারের পক্ষ থেকে পত্রিকার প্রধান সম্পাদক নাজমুল হক স্বপন ফেরদৌস ওয়ারা সুন্নার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।