চমক দেখিয়ে ধানের শীষ পেলেন মনি

187

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচনে চমক দেখিয়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) মনোনয়ন (ধানের শীষ) পেয়েছেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সিরাজুল ইসলাম মনি। গতকাল সোমবার কেন্দ্রীয় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এ মনোনয়নপত্র দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে সিরাজুল ইসলাম মনির পক্ষে সংগ্রহ করা হয়েছে। ৬ জন প্রার্থী মনোনয়ন চেয়েছিলেন, তাঁদের মধ্যে থেকে সিরাজুল ইসলাম মনিকে বিএনপি মনোনিত ধানের শীষ প্রতীকের চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে চিঠি দেওয়া হয়। সিরাজুল ইসলাম মনি মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার খবর দুপুরে ছড়িয়ে পড়লে তাঁকে জেলা বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়। বিভিন্ন স্থানে মিষ্টি বিতরণের খবরও পাওয়া গেছে।
জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম মনি। মেয়র প্রার্থী হিসেবে মাঠে হঠাৎ করেই তাঁর প্রচারণাও শুরু হয়। পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের তিনবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর তিনি। কাউন্সিলর হিসেবে তাঁর জনপ্রিয়তা বেশ ভালো। সিরাজুল ইসলাম মনি পৌর বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকাসহ পৌর বিএনপির সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন। জেলা বিএনপির বিভিন্ন সময়ের আন্দোলন-সংগ্রামে অংশ নিয়েছেন সামনে থেকে। দলের জন্য বিভিন্ন সময় মামলা ও হামলার স্বীকার হওয়াসহ কারাবরণও করেছেন তিনি। সিরাজুল ইসলাম মনি দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় জেলা বিএনপিসহ অঙ্গসহযোগী সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা অনেকেই ধন্যবাদ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতৃবৃন্দকে।
চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শরীফুজ্জামান শরীফ বলেন, ‘বিএনপির সিদ্ধান্তকে আমরা শ্রদ্ধা জানাই। আমরা বিশ্বাস করি যদি স্বচ্ছতার মাধ্যমে নির্বাচন হয়, তাহলে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীই নির্বাচনে বিজয়ী হবেন।’ দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি নির্বাচনে ধানের শীষের পক্ষে কাজ করতে মাঠে নামার আহ্বান জানিয়ে শরীফুজ্জামান শরীফ বলেন, ‘পৌর নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকতে হবে। ধানের শীষের প্রার্থীকে আমাদের বিজয়ী করতে হবে।’
চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন ধানের শীষের প্রার্থী সিরাজুল মনি আল্লাহ তায়লার প্রতি শুকরিয়া আদায় করে বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শরীফুজ্জামান শরীফসহ জেলা বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানাই। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শের সৈনিক আমি। দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে, ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দলের সম্মান আমি রাখব। চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় নির্বাচিত হলে, পৌরবাসীর সেবা করব। আমি পৌরবাসীর সকল সমস্যার সমাধান করব। তৃণমূলের মানুষের সেবাকে প্রধান কাজ হিসেবে দেখব। আমি ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা ও মানুষের সেবায় নিজেকে সব সময় নিয়োজিত রেখেছি। কাউন্সিলর থাকাকালীন সময়ে শুধু আমার ওয়ার্ড নয়, যে যখন আমাকে যেভাবে চেয়েছে, আমি নিজেকে সেইভাবে উপস্থাপন করে আসছি এবং ভবিষ্যতে মেয়র হলে সেই সেবাকে আরও বেশি উন্নত করব। মানব সেবাই নিজেকে আরও নিবিড়ভাবে জড়াব।’
এদিকে, জেলা বিএনপি থেকে কোনো প্রার্থী বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করবেন কি না, সে রকম কোনো খবর এখনো পাওয়া যায়নি। আজ মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে বোঝা যাবে বিএনপি থেকে কোনো প্রার্থী বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিবেন কি না।