কোনো প্রকার অনৈতিক সুপারিশ মেনে নেওয়া হবে না

37

সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে নবাগত পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম জাহিদ
বিশেষ প্রতিবেদক:
‘পুলিশ ও সাংবাদিকদের কাজ অনেকটা একই রকম। আমরা গোপনে ঘটনা অনুসন্ধান করি, আর আপনারা প্রকাশ্যে তাৎক্ষণিক ঘটনা তুলে ধরেন। আপনাদের লেখনিতে আমাদের তথা সমাজের ভালো-মন্দ চিত্র ফুটে ওঠে। তাই আপনাদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করে যেতে চাই। এ চুয়াডাঙ্গাকে আপনাদের চেয়ে বেশি ভালোবাসতে চাই। এ জেলায় সবার ভালোবাসা নিয়ে যেভাবে যোগদান করলাম, তার থেকে বেশি ভালোবাসা নিয়ে যেতে চাই।’
চুয়াডাঙ্গা জেলায় কর্মরত প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের সঙ্গে পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেছেন চুয়াডাঙ্গার নবাগত পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম। গতকাল বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় পুলিশ লাইনস ড্রিল শেডে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার আরও বলেন, ‘আমাদের একে অপরকে সহযোগিতা করতে হবে, তবেই আইনশৃঙ্খলা সমুন্নত থাকবে। আপনারা মাদক ও যেকোনো অপরাধমূলক সংবাদ সাহসিকতার সঙ্গে প্রকাশ করুন, প্রয়োজনে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা দেবে পুলিশ।’
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়াটার্স) আবুল বাশারের সঞ্চালনায় সভায় সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজিব হাসান কচি, সাংবাদিক এম এ মামুন, জামান আখতার, আরিফুল ইসলাম ডালিম প্রমুখ।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসপি জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বলেন, ‘আমি চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের সব সদস্যকে মাদকের বিরুদ্ধে শপথ করিয়েছি। মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের একটা প্রচলিত কথা রয়েছে ‘জিরো টলারেন্স’, এ কথাটা আর বলতে চাই না। এখন বলব, মাদকের সঙ্গে কোনো আপোষ নেই। মাদকের সঙ্গে আমাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। যদি মাদকের সঙ্গে কোনো পুলিশ, সাংবাদিক, স্থানীয় জনগণের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়, তবে তা কঠোর হাতে দমন করব। এ বিষয়ে কোনো প্রকার অনৈতিক আবদার কিংবা সুপারিশ মেনে নেওয়া হবে না।’
পুলিশ সুপার আরও বলেন, ‘কঠিন কাজকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে চাই। আমি সাদাকে সাদা, কালোকে কালো বলতে পছন্দ করি। ভালোর চর্চা করব, খারাপকে ভালো করার চেষ্টা করব। চুয়াডাঙ্গায় আসার অনেক আগে শুনেছি, একসময় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা এ অঞ্চলে রামরাজত্ব করত। আজ হয়তো সেই প্রভাব নেই। তবে যেটুকু আছে, তা নির্মূলে শিগগিরই ‘দেশীয় অস্ত্র দা সমর্পণ’ কর্মসূচি হাতে নেব। শুধু প্রচারে নয়, আমি কাজে বিশ্বাসী। সবাই আমাকে সহযোগিতা করবেন।’
সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক সময়ের সমীকর-এর প্রধান সম্পাদক নাজমুল হক স্বপন, সাংবাদিক কামাল জোয়ার্দ্দারসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকেরা।