কারফিউ ভেঙে বিক্ষোভ, পুলিশের গুলিতে নিহত ৩

75

বিশ্ব প্রতিবেদন:
ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের প্রতিবাদে কারফিউ উপেক্ষা করে আসামের গুয়াহাটিতে বিক্ষোভ করেছে হাজারো মানুষ। উত্তাল পরিস্থিতি মোকাবেলায় পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন অন্তত ৩ জন। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে রাজ্যের গুয়াহাটিতে এ ঘটনা ঘটে। এদিন রাজ্যের চারটি এলাকায় পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায় বিক্ষোভকারীরা। বিক্ষোভের মুখে সেনা মোতায়েনের পাশাপাশি ১০ জেলায় ইন্টারনেট সেবা আরও ৪৮ ঘন্টা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বন্ধ রয়েছে ট্রেন চলাচল। অন্যদিকে, ছাবুয়ায় বিজেপি বিধায়ক বিনোদ হাজারিকার বাড়িতে আগুন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে। তবে ওই ঘটনায় কারো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। ওই এলাকায় একটি সার্কেল অফিসেও আগুন দেয় বিক্ষোভকারীরা। এছাড়া, স্থানীয় বিজেপি নেতাদের অভিযোগ, ডিব্রুগড়ে রাষ্ট্রীয় সেবক সঙ্ঘের দপ্তরের বাইরে বেশ কয়েকটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে তারা। এর আগে সোমবার লোকসভার পর বুধবার রাজ্যসভাতেও পাস হয়েছে ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি)। ওই বিলে কেন শুধু অ-মুসলিমদের (হিন্দু, শিখ, পার্সি, খ্রিস্টান, জৈন ও বৌদ্ধ) সুবিধা দেওয়া হলো, তা নিয়ে শুরু থেকেই প্রশ্ন তুলে আসছেন বিরোধীরা। তাদের অভিযোগ, মুসলিমদের সঙ্গে বিভাজনের রাজনীতি করার উদ্দেশ্যেই বিলটি আনা হয়েছে। এই বিলের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার থেকে বিক্ষোভ করছে দেশে উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো। বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে আসাম, মনিপুর ও ত্রিপুরা রাজ্যে। বিক্ষোভ ঠেকতে বুধবার আসামের বিভিন্ন স্থানে কারফিউ জারি করা হয়েছে। ত্রিপুরায় মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত সেনা।