কাঁঠালে কমে ডায়াবেটিস

109

স্বাস্থ্য ডেস্ক:
সারা পৃথিবীতেই টাইপ টু টাইপের ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। ডায়াবেটিস হলে যে শারীরিক ক্ষতির ঝুঁকি থাকে তা খুব সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায় আমাদের জীবনযাত্রা ও খাবারের পছন্দ নিদিষ্ট বা ভাগ করে। যে ধরনের খাবার খেলে ডায়াবেটিসকে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়, সেগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান হলো কাঁঠাল। কিন্তু আমাদের অনেকেরই ধারণা আছে কাঁঠাল খেলে বুঝি ডায়াবেটিস শুধু বাড়ে। বাংলাদেশের মত গ্রীষ্মপ্রধান দেশে প্রচুর পরিমাণে কাঁঠাল জন্মায়। এসব কাঁঠালের আকার ও স্বাদও মনে রাখার মতো। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যারা টাইপ টু ডায়াবেটিসে আক্রান্ত তারাও কাঁঠাল খেতে পারেন। লো গ্লাইসেমিক ইনডেক্স: কার্বোহাইড্রেট থেকে যে গ্লুকোজ উৎপন্ন হয়ে আমাদের রক্তে মেশে তা হলো এই গ্রাইসেমিক ইনডেক্স। এটি খাবারে থাকলে তা শরীরে গিয়ে শরীরকে সতেজ করে তোলে। কাঁঠাল খেয়ে ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীরা রক্তের গ্লুকোজের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। ফাইবার: টাইপ টু ডায়াবেটিস আক্রান্তদের ফাইবারযুক্ত খাবার খাওয়া উচিত। কাঁঠালে প্রচুর ফাইবার থাকে। প্রোটিন: কাঁঠাল একটি প্রোটিনসমৃদ্ধ ফল। অস্ট্রিয়ার মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি অফ ভিয়েনার গবেষকরা এটি প্রমাণ করেছেন। যাদের ব্লাড সুগার রয়েছে বা প্রবণতা রয়েছে তারাও কাঁঠাল খেতে পারেন। অ্যান্টিবায়োটিকস: ব্লাড সুগার লেভেলকে বেড়ে ওঠা থেকে রক্ষা করতে পারে কাঁঠাল। গবেষণাতেই এটি প্রমাণিত হয়েছে যে কাঁঠাল রক্তের শর্করাকে কমিয়ে তুলতে সাহায্য করে।