করোনা ভ্যাকসিন ট্রায়ালে সাফল্য পেয়েছে নোভাভক্স

33

বিশ্ব ডেস্ক:
যুক্তরাষ্ট্রের বায়োটেক কোম্পানি নোভাভক্স মঙ্গলবার ঘোষণা দিয়েছে কোভিড -১৯ জন্য তাদের উদ্ভাবিত পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিনে ব্যাপক ইমিউন সক্ষমতার সাড়া পাওয়া গেছে। একজন কোভিড- ১৯ রোগী সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য যে পরিমাণ ইমিউন সক্ষমতা থাকা দরকার এই ভ্যাকসিন তারচেয়ে শক্তিশালী এবং প্রাথমিক স্তরের ট্রায়ালে সাধারণত সহনশীল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়।
সরকারী ও বেসরকারি অংশীদারিত্ব অপারেশন ওয়ার্প স্পিডের অধীনে যুক্তরাষ্ট্র সরকার গতমাসে কোম্পানিকে ১৬০ কোটি ডলারের তহবিল সরবরাহ করেছে। তবে এটি উৎপাদনে আসার ক্ষেত্রে সময়ের প্রতিযোগিতায় মডেরনা ও আসত্রাজেনিকাসহ অন্যান্য কোম্পানির থেকে পিছিয়ে রয়েছে। এ সব কোম্পানি তাদের ট্রায়ালের শেষ পর্যায় রয়েছে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে কোম্পানি জানায়, প্রেসবো নিয়ন্ত্রিত টেস্টের প্রথম ধাপে ১৮ থেকে ৫৯ বছর বয়সের ১৩১ জন স্বাস্থ্যবান প্রাপ্তবয়স্ক লোকের ওপর পরীক্ষা চালানো হয়। প্রাথমিক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় মাথাব্যথা, ক্লান্তি ও পেশীতে ব্যথা হয়, এটি গুরুতর কোন সমস্যা নয়। কোভিড- ১৯ ভাইরাসের যে প্রোটিন মানবদেহের কোষে আক্রমনের জন্য দায়ী, সেটি প্রতিরোধে এই ভ্যাকসিন কার্যকর। ম্যারিল্যান্ড ভিত্তিক কোম্পানিটি বলেছে, টেস্টে অংশ নেয়া লোকদের ২৮ দিন পরে ভ্যাকসিনের ডোজ আরো বাড়ানো হবে। এই ভ্যাকসিন কোভিড -১৯ প্রতিরোধে কার্যকর এবং সফল হবে বলে কোম্পানি আশা করছে।