করোনা উপসর্গে আলমডাঙ্গায় এক বৃদ্ধের মৃত্যু

77

চুয়াডাঙ্গায় আরও ২৭ জন করোনা আক্রান্ত, নতুন সুস্থ হয়েছেন ১০ জন
নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গার নতুন করে আরও ২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় জেলা সিভিল সার্জন অফিস এ তথ্য নিশ্চিত করে। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৮১৬ জনে। গতকাল সিভিল সার্জন অফিসে ৬ আগস্ট প্রেরিত ৭৭টি নমুনার ফলাফল এসে পৌঁছায়। এর মধ্যে ২৭ জনের রিপোর্ট পজিটিভ ও বাকি ৫০ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এদিকে, করোনা উপসর্গ নিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের ইয়োলো জোনে আমজাদ হোসেন (৭০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। আমজাদ হোসেন জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে।
চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শামীম কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গতকাল বেলা দেড়টার দিকে জ্বর, ঠাণ্ডা-কাঁশি ও গলা ব্যথা নিয়ে বৃদ্ধ আমজাদ হোসেনকে হাসপাতালে ভর্তি করেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। পরে সন্ধ্যা সাতটার দিকে তিনি হাসপাতালে ইয়োলো জোন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। করোনা উপসর্গ থাকায় তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, নিহত আমজাদ হোসেনের মরদেহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন কাজ সম্পন্ন হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।
এদিকে, গতকাল করোনা আক্রান্ত ২৭ জনের মধ্যে সদর উপজেলার গুলশানপাড়ার ১ জন, মুসলিমপাড়ার ১ জন, দৌলাতদিয়াড়ের ১ জন, মাদ্রাসাপাড়ায় ১ জন, সিনেমা হল পাড়ার ১ জন, বেলগাছির ১ জন, জ্বিনতলা পাড়ার ১ জন ও গাইদঘাট গ্রামের ১ জনসহ ৮ জন। আলমডাঙ্গা উপজেলার আলমডাঙ্গা শহরের ৩ জন, পুরাতন বাজার পাড়ার ১ জন, কুমারী গ্রামের ২ জন, মুন্সিগঞ্জের ১ জন, হোসেনপুর গ্রামের ১ জন ও হাটবোয়ালিয়া গ্রামের ১ জনসহ ৯ জন। দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনার ১ জন, দশমিপাড়ার ১ জন, পুরাতন বাজারপাড়ার ২ জন ও সদাবাড়ি গ্রামের ১ জনসহ ৫ জন এবং জীবননগর উপজেলার শাপলা কলিপাড়ার ১ জন, হাসপাতাল পাড়ার ১ জন, পুরাতন তেঁতুলিয়া গ্রামের ২ জন ও জীবননগরের আরও ১ জনসহ ৫ জন।
এদিকে, কুষ্টিয়ার মেডিকেল কলেজ পিসিআর ল্যাবে গতকাল ফলোআপসহ চুয়াডাঙ্গার ৯৪টি, মেহেরপুর ৩২টি ও কুষ্টিয়ার ২৪৯টি নমুনাসহ ৩৭৫টি নমুনা পরীক্ষা করে চুয়াডাঙ্গার নতুন ২৭ জন, মেহেরপুর ১৪ জন ও কুষ্টিয়ার ৭৪ জনসহ মোট ১১৫ জন করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড় চুয়াডাঙ্গার ৬ জনের ফলোআপ রিপোর্ট পজিটিভ। বাকিগুলোর ফলাফল নেগেটিভ। গতকাল জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা আক্রান্ত সন্দেহে কোনো নমুনা সংগ্রহ করেনি।
জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ৭৭টি নমুনা সংগ্রহ করে। সদর উপজেলা থেকে ৪০টি, আলমডাঙ্গা উপজেলা থেকে ১৭টি, দামুড়হুদা উপজেলা থেকে ৪টি, জীবননগর উপজেলা থেকে ১৬টি নমুনাসহ সংগৃহীত ৭৭টি নমুনা পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। গতকাল বৃহস্পতিবার উক্ত ৭৭টি নমুনার ফলাফলই সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ ৩ হাজার ৭৫৩টি, প্রাপ্ত ফলাফল ৩ হাজার ৬১৬টি, পজিটিভ ৮১৬ জন, নেগেটিভ ২ হাজার ৮০২ জন। গতকাল আইসোলেশন থেকে নতুন সুস্থ হয়েছেন ১০ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ হয়েছে ৩৯৫ জন ও মৃত্যু ১৩ জন।