করোনার নতুন বিধিনিষেধে ইতালি জুড়ে বিক্ষোভ

30

বিশ্ব ডেস্ক:
ইতালিতে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গকে আটকাতে গত সোমবার নতুন বিধিনিষেধ ঘোষণা দেয় ইতালিয়ান সরকার। ঘোষণার পর থেকেই ইতালি জুড়ে শুরু হয় বিক্ষোভ। সাংঘর্ষিক বিক্ষোভের প্রথম খবর মেলে মিলান এবং তুরিন শহরে। সেখানে বিক্ষোভকারীদের সরকারী অফিসারদের উপর পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করতে দেখা যায়।
মিলানে প্রতিবাদকারীদের টিয়ার গ্যাস ছুড়ে ছত্রভঙ্গ করা হলেও, নেপলসের জড়ো হয় হাজার হাজার মানুষ। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬ টা ৩০ মিনিটে রেস্তোরাঁ, বার, জিম এবং সিনেমাগুলি বন্ধের নির্দেশ আসে সরকারের পক্ষ থেকে । এ সরকারী নির্দেশ কার্যকর হওয়ার পরপরই শুরু হয় এই বিক্ষোভ। আন্দোলন আস্তে আস্তে সহিংসতার দিকে রূপ নিলে বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণে আনতে লোমাদি, মিলান, পাইডমন্ট, তুরিন সহ অনেকগুলি শহরে রাতেই কারফিউ জারি করে সরকার। পুলিশ জানিয়েছে যে শুধুমাত্র মিলানে ২৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। রোম, জেনোয়া, পালের্মো এবং ট্রাইস্টি সহ অন্যান্য শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। ট্যাক্সি ড্রাইভাররা তুরিনের রাস্তায় তাদের ট্যাক্সি থামিয়ে আন্দোলন করে। শুধু তাই না রেস্তোরার মালিকরা তাদের রান্নার হাড়ি পাতিল বের করে রাস্তায় বিক্ষোভ করে। নেপলসে, সেন্ট্রাল পিয়াজ্জা দেল প্লিবিসিটোতে প্রচুর জনসমাগম হয়েছিল, অনেকে আঞ্চলিক গভর্নরকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।
ছোট ব্যবসায়ীরা বলছেন, প্রথমবার লকডাউনে আমাদের যে ক্ষতি হয়েছে আমরা সেই ক্ষতি থেকে এখনো বের হতে পারিনি। সরকার যদি আবার লকডাউন দেয় তাহলে আমরা দেউলিয়া হয়ে যাবো। না খেয়ে মরা ছাড়া আমাদের আর কোনো পথ থাকবে না। খুব দ্রুত আর্থিক সহায়তার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কন্টি।