করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ফের টালমাটাল বিশ্ব

26

ইউরোপে প্রতি ১৭ সেকেন্ডে ১ জনের মৃত্যু * অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন আসছে ফেব্রুয়ারিতে
সমীকরণ প্রতিবেদন:
করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ফের টালমাটাল বিশ্ব, বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যু। বিশ্বে গেল ২৪ ঘণ্টায় আরও সাড়ে ৬ লাখ মানুষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এতে মোট রোগীর সংখ্যা ৫ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। একই সময়ে মারা গেছেন ১০ হাজার ৭শ’র বেশি মানুষ। ইউরোপেই প্রতি ১৭ সেকেন্ডে করোনায় একজনের মৃত্যু হচ্ছে। চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো। সামনের ৬ মাস আরও কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করতে হবে বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তাই নতুন ধাক্কা এড়াতে লকডাউন বা বিধিনিষেধ শিথিলে তাড়াহুড়ো করতে নিষেধ করেছে সংস্থাটি। আগামী ফেব্রুয়ারিতে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন আসছে বলে জানিয়েছে ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউট। তারা বলেছে, এর দুটি ডোজের দাম হতে পারে ১ হাজার রুপি। খবর বিবিসি, এএফপি ও রয়টার্সসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের।
প্রথমদিকে করোনা নিয়ন্ত্রণে যে কয়েকটি দেশ বেশ সফলতা দেখিয়েছে তার মধ্যে অন্যতম রাশিয়া। তবে সেপ্টেম্বর থেকে দেশটিতে করোনা পরিস্থিতির ব্যাপক অবনতি হয়েছে। রাশিয়ায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০ লাখ ছাড়িয়েছে। নতুন করে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর কথা জানিয়েছে রুশ করোনাভাইরাস টাস্কফোর্স। করোনা নিয়ন্ত্রণে ভ্যাকসিন এখন একমাত্র ভরসা বলছেন দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। রাশিয়ার মতো করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে টালমাটাল ইউরোপের বেশিরভাগ দেশ। যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি ফ্রান্স, স্পেন, ইতালি, জার্মানিতেও আশঙ্কাজনক হারে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়েছে। পোল্যান্ডে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো রেকর্ডসংখ্যক মৃত্যু হয়েছে। এ অবস্থায় তাড়াহুড়ো করে লকডাউন বা বিধিনিষেধ শিথিল করার বিষয়েও সতর্ক করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপবিষয়ক আঞ্চলিক পরিচালক হ্যানস ক্লুজ। তিনি বলেন, ইউরোপে প্রতি ১৭ সেকেন্ডে একজনের মৃত্যু হচ্ছে। তাই করোনা মোকাবেলায় মাস্ক ব্যবহারের ওপর আরও বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। জনসাধারণের প্রত্যেকেই যদি মাস্ক পরার মতো স্বাস্থ্য সুরক্ষার নিয়মগুলো অনুসরণ করে, তাহলে লকডাউন এড়ানো সম্ভব। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাত ৭টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্যানুযায়ী বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ কোটি ৭৩ লাখ ৮৫ হাজার ৫৪৫ জন। মারা গেছেন ১৩ লাখ ৬৮ হাজার ৫২৪ জন। অবস্থা আশঙ্কাজনক ১ লাখ ১ হাজার ৮৮৮ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ৯৮ লাখ ৬৪ হাজার ২২৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৫০ হাজার ৪৪২ জন, মারা গেছেন ১০ হাজার ৭৭৬ জন। বিশ্ব তালিকায় শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ১ কোটি ২০ লাখ ৭৫ হাজার ২৫৪ জন, মারা গেছেন ২ লাখ ৫৮ হাজার ৩৫৬ জন। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে মোট রোগী ৯০ লাখ ৬ হাজার ৫৯৮ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৩২ হাজার ২৪৫ জনের। বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ৫৯ লাখ ৮৩ হাজার ১২৮ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৬৮ হাজার ১৪৬ জন। চতুর্থ স্থানে ফ্রান্সে করোনা রোগীর সংখ্যা ২০ লাখ ৮৬ হাজার ২৮৪ জন। দেশটিতে মারা গেছেন ৪৭ হাজার ১২৪ জন। রাশিয়ায় করোনা রোগীর সংখ্যা ২০ লাখ ৩৯ হাজার ৯৫৭ জন। দেশটিতে মারা গেছেন ৩৫ হাজার ৩৫০ জন।
অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন ফেব্রুয়ারিতে
অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন আগামী ফেব্রুয়ারিতে আসার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদার পুনওয়ালা। তিনি জানান, তখন স্বাস্থ্যকর্মী ও প্রবীণদের এ ভ্যাকসিন দেয়া হবে। সর্বসাধারণের জন্য তা উন্মুক্ত হবে এপ্রিলে। পুনওয়ালা আরও বলেন, সাধারণ রোগীদের কাছে এই ভ্যাকসিনের দুই ডোজের দাম এক হাজার ভারতীয় রুপি নেয়া হতে পারে। তবে সবকিছু নির্ভর করবে চূড়ান্ত ট্রায়ালের ফল ও নিয়ন্ত্রণ সংস্থার অনুমোদনের পর।
রেমডেসিভির ব্যবহার না করার পরামর্শ : হাসপাতালে ভর্তি হওয়া সব ধরনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে রেমডেসিভির ব্যবহার না করার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। শুক্রবার সংস্থাটির একটি প্যানেল জানিয়েছে, রোগীর অবস্থা যেমনই হোক না কেন, এই ওষুধ ব্যবহারের ফলে বেঁচে থাকার সম্ভাবনা বা ভেন্টিলেশনের প্রয়োজনীয়তা কমিয়ে আনার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।