উৎসব আমেজে ৩০৫৬ মনোনয়নপত্র জমা

204

ডেস্ক রিপোর্ট: ভোট যুদ্ধে নামার আগে প্রথম প্রস্তুতি হিসেবে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণে আগ্রহী প্রার্থীরা। ২০০৮ সালের পর এবারই সব দলের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তাই নির্বাচনকে ঘিরে বাড়তি উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে। এই নির্বাচনী উত্তাপে অংশগ্রহণ করতে দেশের ৩’শ সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া, যুক্তফ্রন্ট, বাম গণতান্ত্রিক জোটের এক হাজার ৬৮৫ জনেরও বেশি প্রার্থী মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। এছাড়া কোন দল থেকে প্রার্থী হতে পারেননি কিংবা দল ছাড়া নির্বাচন করতে চান এমন অনেকে স্বতন্ত্র প্রার্থীও মনোনয়ন ফরম রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দিয়েছেন। সবমিলিয়ে ৩ হাজার ৫৫৬জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়। গতকাল (বুধবার) মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল। এর আগের দিনগুলোতে মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার সুযোগ থাকলেও বেশিরভাগ প্রার্থীই শেষ দিনে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর মিছিল, শোডাউন, মোটরসাইকেল, মটর গাড়ি শোভাযাত্রা নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে মনোনয়ন ফরম জমা দিতে যান সংসদ নির্বাচনের প্রার্থীরা। প্রতিটি এলাকায় অত্যন্ত আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশে প্রার্থীরা তাদের মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। গতকাল শেষ দিনে ঠাকুরগাঁও-১ আসনে ও বগুড়া-৬ খালেদা জিয়ার আসনে মনোনয়ন জমা দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ঢাকা-১ আসনে সালমান এফ রহমান, ভোলা-১ তোফায়ের আহমেদ, সিলেট-৬ আসনে নুরুল ইসলাম নাহিদ, ঢাকা-৮ আসনে মির্জা আব্বাস, কুমিল্লা-১ ও ২ আসনে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, রংপুরে এরশাদের পক্ষেও মনোনয়ন ফরম জমা দেয়া হয়। নির্বাচন কমিশন ও রাজনৈতিক দলগুলো সূত্রে জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট থেকে প্রায় ৬২০ জন প্রার্থী হওয়ার জন্য মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। নির্বাচনে এই জোটের প্রধান বিরোধী বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দল ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে ৯৬৬জন প্রার্থী ফরম জমা দিয়েছেন। এছাড়া বাম গণতান্ত্রিক জোটের প্রার্থীরা ৯৭টি আসনে জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে মহাজোটের প্রধান শরিক আওয়ামী লীগের ২৬৫ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। তাদের অন্য শরিকদের মধ্যে জাতীয় পার্টি ১১১টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ-ইনু) ৫৫টি, জাসদ (আম্বিয়া) ৩, ওয়ার্কার্স পার্টি ৩৪, তরিকত ফেডারেশন ২ ও বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট ৫১টি আসনে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। অন্যদিকে জামায়াত ছাড়া ২০ দলীয় জোটের বিএনপিসহ অন্যদলগুলো ৩০০ আসনের বিপরীতে ৮’শ প্রার্থী মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। ২০ দলীয় জোটের শরিকদের মধ্যে জামায়াত ৫০টি আসনে আলাদাভাবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে গণফোরাম ৭০টি, নাগরিক ঐক্য ৯টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) ৩২, ঐক্য প্রক্রিয়ার ৫জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। এছাড়া বাম গণতান্ত্রিক জোটের মধ্যে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) ৪৪টি, গণসংহতি আন্দোলন ২০টিসহ অন্য রাজনৈতিক দলগুলো ৩৩টি আসনে মনোনয়ন জমা দিয়েছে। এছাড়াও সারাদেশে শতাধিক স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণের আগ্রহ দেখিয়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার শেষ দিনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাওয়া খবর থেকে জানা যায়, প্রতিটি আসনের প্রার্থীরাই উৎসবমুখর পরিবেশে তাদের মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র জমার শেষ দিনে গতকাল (বুধবার) সকাল থেকেই রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের অফিসে প্রার্থীরা আসতে শুরু করেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা আরও বাড়তে থাকে। সকাল ৯টা থেকে প্রার্থীরা বিকেল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেন। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার বিষয়ে ইসির নির্দেশনা ছিল শোডাউন নিয়ে যাওয়া যাবে না। সাত জনের বেশি লোক রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে ভিড় করতে পারবেন না। কিন্তু কোন দলের প্রার্থীই এটি মানেননি। তবে নির্বাচনী আচারণ বিধি লঙ্ঘন হলেও এ উৎসবকে ভোটের উৎসব হিসেব দেখছেন প্রার্থীরা। তাদের দাবী, নির্বাচনে সকল প্রার্থীর সমান সুযোগ নিশ্চিত করবে কমিশন।