ঈদের আনন্দে বাগড়া বাধাবে বৃষ্টি

28

সমীকরণ প্রতিবেদন:
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নি¤œচাপটি দুর্বল হয়ে পড়ছে। সেই সঙ্গে স্থিতিশীল হচ্ছে সাগর। তবে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় বৃষ্টিপাত থাকবে আগামী ১০ দিন। এ অবস্থায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়বে আগামী রোববার (১১ আগস্ট) থেকে। আর ঈদের দিন সোমবার (১২ আগস্ট) সারাদেশে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হবে। আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ এ তথ্য জানিয়ে বলেন, ১২ আগস্ট থেকে বৃষ্টিপাত বাড়বে। ঈদের দিন সারাদেশেই বৃষ্টি হবে। তবে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা কম। হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হবে। এক্ষেত্রে দেশের অধিকাংশ স্থানে হালকা (৪ থেকে ১০ মিলিমিটার) থেকে মাঝারি ধরনের (১১ থেকে ১২ মিলিমিটার) বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী (২৩ থেকে ৪৩ মিলিমিটার) বৃষ্টি হতে পারে। তিনি বলেন, রাজধানীতেও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হবে। ৪৩ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হলে সে অবস্থাকে ভারী বর্ষণ বলে আবহাওয়া অফিস। আর হালকা থেকে মাঝারি বর্ষণেও জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়, যদি টানা বর্ষণ হয়। এক পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নি¤œচাপটি পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে রাজস্থান ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে দুর্বল হয়ে পড়বে। এজন্য বৃষ্টিপাত কমে গেছে। পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ু বর্তমানে বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি আকারে অবস্থান করছে। রোববার (১১ আগস্ট) নাগাদ এই অবস্থার পরিবর্তন হবে। আর আগামী পাঁচদিনে বৃষ্টিপাত আরও বাড়বে। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হবে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এবং দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, কক্সবাজার, পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে বৃষ্টিপাত হওয়ার আভাস নেই বললেই চলে।