আশ্রয় শিবিরে খ্রিস্টান-মুসলিম রোহিঙ্গা সংঘর্ষ

122

বিশ্ব প্রতিবেদন
কক্সবাজারের কুতুপালং আশ্রয়শিবিরে খ্রিস্টান রোহিঙ্গা ও মুসলিম রোহিঙ্গাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। সোমবারের ওই সংঘর্ষের জন্য এক পক্ষ অন্য পক্ষকে দায়ী করছে। করা হচ্ছে অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ। এ নিয়ে অনলাইন বেনার নিউজ একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে, রোহিঙ্গা উগ্রপন্থিদের হাতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ১২ রোহিঙ্গা শরণার্থী খ্রিস্টান। তারা চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে দাবি করেছে ভারতের রোহিঙ্গা খ্রিশ্চিয়ান অ্যাসেম্বলি নামের একটি গ্রুপ। কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় শিবিরে এই সহিংসতার কথা নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। তবে এতে আরাকান রোহিঙ্গা সালভেশন আর্মি’র (আরসা) জড়িত থাকার কথা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। পুলিশ বলেছে, সাধারণ আইন শৃংখলা বিষয়ক এক ঘটনায় চারজন খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের এবং একজন মুসলিম আহত হয়েছেন। কুতুপালংয়ে শরণার্থী শিবিরে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
রিপোর্টে আরো বলা হয়, কুতুপালং শিবির থেকে বেনার নিউজকে সাইফুল নামের একজন খ্রিস্টান বলেছেন, সোমবার সকালে আমাদের ওপর, খ্রিস্টানদের ওপর ওপর হামলা চালায় আরসা। তারা আমাদের বাড়িঘর লুট করে। অনেক ক্রিস্টান সদস্যকে প্রহার করে। বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন কমপক্ষে ১২ জন খ্রিস্টান। সাইফুল আরো বলেছেন, তার সম্প্রদায়ের বেশির ভাগই মিয়ামনারে ধর্মান্তরিত হয়ে খ্রিস্টান হয়েছেন। ২০০৭ সালে মিয়ানমারের মংডুর বউলিবাজার থেকে সীমান্ত অতিক্রম করে তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা প্রবেশ করেন বাংলাদেশে। সোমবার তিনি অভিযোগে বলেন, ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে আমাদের ওপর হামলা করা হয়েছে। গত বছর ১০,১১ ও ১৩ ই মে সন্ত্রাসীদের একই গ্রুপ আমাদের ওপর হামলা চালায়। তারা চায় আমরা এই আশ্রয় শিবির ছেড়ে চলে যাই। তারা পর্যায়ক্রমিকভাবে আমাদের ওপর আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে।