আলমডাঙ্গায় একটি ২০ কেভি সাব স্টেশন নির্মাণ করা হবে

198

বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগে গাড়ি হস্তান্তরকালে ওজোপাডিকোর প্রকৌশলী শফিউদ্দিন
আলমডাঙ্গা অফিস:
আলমডাঙ্গা ওজোপাডিকো বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগে একটি গাড়ি প্রদান করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার দিকে এ গাড়ি হস্তান্তর করা হয়। ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ড্রিস্টিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মো. শফিউদ্দিন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ গাড়ি হস্তান্তর করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রকৌশলী মো. শফিউদ্দিন বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগকে ঢেলে সাজনো হবে। আলমডাঙ্গা বিদ্যুৎ অফিসে একটি ২০ কেভি সাব স্টেশন নির্মাণ করা হবে। বর্তমানে ৬ কেভি রয়েছে। এছাড়াও ১ কোটি ৫০ লাখ টাকার বিল্ডিং কনস্ট্রাকশনসহ সাব স্টেশন নির্মাণকাজের টেন্ডার হয়ে গেছে। ঠিকাদার কাজ পেয়েছেন। অতিদ্রুত কাজ শুরু হবে। ৪৪.৪ কিলোমিটার নতুন লাইনের কাজ হচ্ছে এবং ইতোমধ্যে ৩৬ কিলোমিটার নতুন লাইনের কাজ শেষ হয়েছে। ভোল্টেজ সমস্যা দূরীকরণে ৫৩টি বিতরণ ট্রান্সফরমা বসানো হচ্ছে। এর আগে ২৩টি ট্রান্সফরমা লাগানো হয়ে গেছে।
আলমডাঙ্গা ওজোপাডিকোর আবাসিক প্রকৌশলী গোলাম নবীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মাকসুরা খন্দকার। তিনি বলেন, ‘আমি আলমডাঙ্গার সন্তান হিসেবে আলমডাঙ্গা-চুয়াডাঙ্গাসহ অত্র অঞ্চলের বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার গতি ফিরিয়ে আনতে যা যা করণীয়, আমি করার চেষ্টা করব। ব্যবস্থাপনা পরিচালক যা বলেছেন, আমি তাঁর সঙ্গে থেকে কাজ করেছি। আপনারা জেনে খুশি হবেন, ভোল্টেজ সমস্যা দূরীকরণে ঝিনাইদহে ৪০০ কেভি সুপার গ্রিড বসানো হচ্ছে। এর কাজ শেষ হলে এ অঞ্চলে ভোল্টেজ সমস্যা দর হয়ে যাবে। আলমডাঙ্গা উপজেলা একটি বৃহৎ উপজেলা। সে হিসেবে লোকবল কম থাকায় গ্রাহকসেবা সম্পূর্ণরুপে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে খুব শিগগিরই সাব স্টেশনের কাজ শেষ হলে নতুন লোকবলও আপনারা পাবেন।’
বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (কুষ্টিয়া) আতিকুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী বিক্রয় ও বিতরণ (চুয়াডাঙ্গা) মো. মাইনদ্দিন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী বাবু তুষার কান্তি সরকার, রোকনুজ্জামান প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে অফিস চত্বরে বৃক্ষরোপন করেন অতিথিরা।