আলমডাঙ্গার দুই মোটরসাইকেলের আরোহি নিহত

305

হরিণাকুন্ডুতে বালু ভর্তি ট্রাক্টর ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ
আলমডাঙ্গা অফিস: ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার নারায়নকান্দি নামক স্থানে বালু ভর্তি ট্রাক্টর মোটরসাইকেলে মুখোমুখি সংঘর্ষে রিগান (৩০) ও মছলেছুর রহমান (৩২) নামে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গতকাল সোমবার দুপুরে নারায়নকান্দি গ্রামের ব্রীজের কাছে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রিগান চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার পাঁচলিয়া গ্রামের আজিজুল মন্ডলের ছেলে। অন্যদিকে মখলেছুর রহমান একই উপজেলার ঘোষবিলা গ্রামের শের আলীর ছেলে।
জানা গেছে, সোমবার আলমডাঙ্গা উজেলার ঘোষবিলা গ্রামের শের আলীর ছেলে মকলেস ও একই উপজেলার পূরতন পাঁচলিয়া গ্রামের আজিজারের ছেলে রিগান মোটরসাইকেলযোগে পার্টস কেনার জন্য ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু যাচ্ছিল। এ সময় নারায়নকান্দি বীজ্রের নিকট পৌছালে সামনের দিক থেকে আসা একটি বালি বোঝায় ট্রাক্টরের টলির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেল আরোহী দু’জন রাস্তায় ছিটকে পড়ে। এ সময় বালি বোঝায় ট্রাক্টরের টলি তাদের চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই রিগান মারা যায়। স্থানীয়রা মকলেসকে উদ্ধার করে হরিণাকু- সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকেও মৃত ঘোষনা করে।
হরিণাকুন্ডু থানার ওসি কাজী আইয়ুবুর রহমান জানান, সোমবার দুপুরে রিগান ও মখলেছ ইলেক্ট্রিশিয়ানের কাজ করার জন্য হরিণাকুন্ডু শহরে আসে। তারা বাড়ি ফিরে যাওয়ার সময় নারায়নকান্দি গ্রামের ব্রীজের কাছে পৌছালে বালু ভর্তি একটি ট্রক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা নিহত হন। দুর্ঘটনার পর পরই ট্রাক্টরটি পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পরিবারে দাবি পরিকল্পিতভাবে ট্রাক্টরের মালিক আক্তার মেম্বার টলি চাপায় তাদের মেরে ফেলেছে। এ ঘটনায় হরিণাকুন্ডু থানায় মামলা হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে গতকাল রাতেই তাদের লাশ নিজ গ্রামে এনে দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়েছে।