আলমডাঙ্গার কাবিলনগর গ্রামের কৃষক শামসুল অপহরন মামলা পুলিশি অভিযানে অপহরণ ঘটনায় আটক ৪

437

20161218_124356আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গার কাবিলনগর গ্রামের কৃষক শামসুল অপহরন মামলায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে তাদেরকে কাবিল নগর ও তিয়রবিলা গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। গত বছরের শেষ দিকে শামসুল হকের কিশোর ছেলে শলোককে অপহরণ ও হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এর এক বছরের মাথায় তিনিও অপহরনের শিকার হন। আলমডাঙ্গার কাবিলনগর গ্রামের কৃষক শামসুল হক অপহরনের ঘটনায় পুলিশ বিভাগে তোলপাড় ওঠে। দুর্বৃত্তরা তার কিশোর ছেলে শলোককে এক বছর আগে অপহরন ও হত্যার পর শামসুল হককে অপহরন ঘটনায় টনক নড়ে পুলিশ বিভাগের। পুলিশ শামসুল হক অপহরন ঘটনার তদন্তে নামে। শনিবার রাতে পুলিশ কাবিলনগর ও তিয়রবিলা গ্রামে অভিযান চালায়। আলমডাঙ্গা থানার এসআই সাজ্জাদুল হক অভিযান চালিয়ে কাবিলনগর গ্রামের মুলুক মন্ডলের ছেলে রাজ্জাক আলী, একই গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে রফি, তিয়রবিলা গ্রামের মৃত গোলাপ মন্ডলের ছেলে শফিউদ্দিন ও একই গ্রামের মৃত নেছার উদ্দিন মৃধার ছেলে আতিয়ার রহমানকে শামসুল হক ঈধহনের ঘটনায় গ্রেফতার করে। তাদেরকে গতকালই আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। গত বছরের শেষে দিকে আলমডাঙ্গার কাবিলনগর গ্রামের কৃষক শামসুল হকের ছেলে কিশোর শলোককে অপহরন ও হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। অপহরনের তিনদিনের মাথায় সরোজগঞ্জের বোয়ালিয়া বিল থেকে ক্ষতবিক্ষত শলোকের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় দুর্বৃত্তদের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের হয়। আদালতে চার্জশীট দেওয়া হয়। চার্জশীট থেকে কিছু আসামীর নাম বাদ যাওয়ায় শামসুল হক আদালতে নারাজী পিটিশান দায়ের করতে ১১ ডিসেম্বর সকালে চুয়াডাঙ্গা কোর্টে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হন। পথিমধ্যে শামসুল হকও ছেলে শলোকের ভাগ্য বরণ করতে অপহরনের শিকার হন।