আনুষ্ঠানিকভাবে রোহিঙ্গা নির্যাতনের নিন্দা জানালো ইসরাইল

112

বিশ্ব ডেস্ক
প্রথমবারের মতো মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিম নির্যাতনের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে নিন্দা জানিয়েছে ইসরাইল। এর আগে অবশ্য বিপরীত মত প্রকাশ করেছে মিয়ানমারে নিযুক্ত ইসরাইলি রাষ্ট্রদূত রনেন গিলর। বর্তমানে আন্তর্জাতিক পরিসরে রোহিঙ্গা নির্যাতন নিয়ে একাধিক মামলার সম্মুখীন মিয়ানমার সরকার ও এর নেতারা। বুধবার গিলর তার ব্যক্তিগত টুইটার একাউন্টে তেমন একটি মামলা মোকাবিলায় মিয়ানমারের বেসামরিক নেত্রী অং সান সুচির প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। পরবর্তীতে সমালোচনার মুখে টুইটটি সরিয়ে নেন তিনি। এই ঘটনার একদিন পরই রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে হওয়া নির্যাতনের নিন্দা জানিয়েছে ইসরাইল। এ খবর দিয়েছে দ্য হারেৎস। খবরে বলা হয়, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা নির্যাতনের অভিযোগে সুচি সহ মিয়ানমার নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। বুধবার গিলর এক টুইটে ওই মামলা লড়ায় সুচিকে শুভকামনা জানান। সুচির একটি ছবি দিয়ে তিনি লিখেন, বিশ্ব আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা লড়বেন মিয়ানমারের নেত্রী ও স্টেট কাউন্সেলর অং সান সুচি-ভালো সিদ্ধান্তের জন্য অনুপ্রেরণা ও শুভ কামনা।
প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের আগস্ট থেকে মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নৃশংস অভিযান চালায় দেশটির সামরিক বাহিনী। এসব অভিযানেম মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ, হত্যা ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ ওঠেছে। অভিযান থেকে বাঁচতে বাংলাদেশের পালিয়ে এসেছে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা। এই নৃশংসতাকে ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিয়ে ১১ই নভেম্বর জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস (আইসিজে)-এ মামলা করে গাম্বিয়া। আগামী ১০-১২ ডিসেম্বর নেদারল্যান্ডসের হেগে অবস্থিত আইসিজে’তে মামলাটির প্রকাশ্য শুনানি শুরু হবে।