আগস্টে আবারো বন্যা

46

সমীকরণ ডেস্ক:
চলতি আগস্ট (শ্রাবণ-ভাদ্র) মাসে বাংলাদেশে স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বেশি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এ মাসে বঙ্গোপসাগরে দুই থেকে তিনটি বর্ষাকালীন লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এরমধ্যে জোরদার হয়ে একটি বর্ষাকালীন (মৌসুমী) নি¤œচাপে পরিণত হতে পারে। সম্ভাব্য এই লঘুচাপ-নি¤œচাপগুলো দেশে ভারী বর্ষণের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। ভরা বর্ষার মৌসুমী ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে আগস্ট মাসে দেশে আবারও বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। জুলাইয়ের বন্যার ধাক্কা না কাটতেই বন্যা কবলিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল, উত্তরাঞ্চল ও উত্তর-পূর্বাঞ্চল। এ বন্যা হতে পারে স্বল্পমেয়াদি।
গতকাল বিশেষজ্ঞ কমিটির সভায় এ পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস প্রদানের লক্ষ্যে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আবহাওয়ার সর্বশেষ তথ্য-উপাত্ত, ঊর্ধ্বাকাশের আবহাওয়া বিন্যাস, বায়ুম-লের বিভিন্ন স্তরের বিশ্লেষিত আবহাওয়া মানচিত্র, জলবায়ু মডেল, এল-লিনো এবং লা-নিনা অবস্থাসহ যাবতীয় উপাদান বিশ্লেষণ ও পর্যালোচনা করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক ও বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন আহমেদ।
এর আগে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র গত ২৫ জুলাই এক প্রতিবেদনে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের আবহাওয়া বিভাগের পূর্বাভাসের ভিত্তিতে জানায়, আগস্ট মাসের মধ্যভাগ পর্যন্ত দেশে বড় ধরনের কোনো বন্যার আশঙ্কা নেই। তবে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে এবং বাংলাদেশ সংলগ্ন নদ-নদীসমূহের উজানভাগের অববাহিকায় উত্তর-পূর্ব ভারত, বিহার ও নেপালসহ বিভিন্ন অঞ্চলে মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বৃষ্টিপাতের পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে আগস্টের শেষভাগে দেশের উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যার ঝুঁকি রয়েছে। গত জুলাই (আষাঢ়-শ্রাবণ) মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই দেশের উত্তর-পূর্ব, দক্ষিণ-পূর্ব, উত্তররাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চল পর্যায়ক্রমে বন্যা কবলিত হয়। যা প্রধানত উজানে উত্তর-পূর্ব ভারতে অতিবৃষ্টিতে আসা ঢলের কারণে। এতে দেশের ২৮টি জেলা বন্যা কবলিত হয়। এখন পানি হ্রাস অনেকটা পেয়েছে। এদিকে গত জুলাই (আষাঢ়-শ্রাবণ) মাসে সারাদেশে সার্বিকভাবে স্বাভাবিকের চেয়ে প্রায় ২৬ শতাংশ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। বিভাগওয়ারি হিসাবে বৃষ্টিপাতের স্বাভাবিক হারের ক্ষেত্রে গরমিল লক্ষ্য করা যায়। যেমন- জুলাইয়ে ময়মনসিংহ বিভাগে স্বাভাবিকের চেয়ে ৫০ দশমিক ৩ শতাংশ এবং চট্টগ্রাম বিভাগে ৪০ দশমিক ৬ শতাংম বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। আবার খুলনা বিভাগে স্বাভাবিকের চেয়ে ২৭.৫ ভাগ, সিলেট বিভাগে ৪.৭ ভাগ কম বৃষ্টি হয়েছে। ঢাকা বিভাগে স্বাভাবিকের চেয়ে প্রায় ৫ শতাংশ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। জুলাই মাসে ঢাকায় স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের পরিমান ধরা হয় ৩৬৮ মিলিমিটার। বৃষ্টি ঝরেছে ৩৮৭ মি.মি.। আর সারাদেশে গড়ে ২৫.৮ ভাগ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে।