আইনি জটিলতায় নিখোঁজ বৃদ্ধর উদ্ধার কাজ বন্ধ!

27

দামুড়হুদার বাড়াদী মাথাভাঙ্গা নদীতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ
দর্শনা অফিস:
দামুড়হুদা উপজেলার বাড়াদী সীমান্তবর্তী মাথাভাঙ্গা নদীতে গোসল করতে গিয়ে ওয়াজেল হোসেন (৬৫) নামের এক বৃদ্ধ নিখোঁজ হয়েছেন। তিনি উপজেলার পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের কামারপাড়া গ্রামের মৃত আক্কাস মণ্ডলের ছেলে। গত সোমবার বেলা তিনটার দিকে কামারপাড়া গ্রামের সীমান্তবর্তী মাথাভাঙ্গা নদীতে গোসল করতে গিয়ে তিনি নিখোঁজ হন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি জানাজানি হলে তাঁর লাশ খুঁজতে/দেখতে হাজার হাজার উৎসুক জনতা নদীর কাছে ভিড় জমায়। তাঁকে উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছালেও ভারত সীমান্তের জিরো পয়েন্টের নিকট হওয়ায় আইনি জটিলতার কারণে উদ্ধার কাজ না করে ফিরে যান। দুপুর পর্যন্ত তাঁর লাশ নদীতে কোথায় দেখা যায়নি।
দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের অফিসার হাফিজুর রহমান বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছালে ভারত সীমান্ত জিরো পয়েন্টের নিকট হওয়ায় আইনি জটিলতার কারণে উদ্ধার কাজ না করে ফিরে এসেছি।’
দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুবুর রহমান কাজল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বয়স্ক ওয়াজেল হোসেন (৬৫) সীমান্তবর্তী মাথাভাঙ্গা নদীতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হন। মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে তাঁকে উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে সীমান্তবর্তী মাথাভাঙ্গা নদী তাঁর লাশ বাংলাদেশের সীমানার মধ্যে পাওয়া গেলে ভালো। লাশ যদি বাংলাদেশের সীমানা পেরিয়ে ভারতে চলে যায়, তাহলে আইনগতভাবে লাশ আনার ব্যবস্থা করতে হবে।’
এ ঘটনার ওয়াজেল হোসেনের পরিবারের আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে কান্নার রোল পড়ে যায়। তাঁর শোকে এলাকার বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। নিখোঁজ বৃদ্ধের না পেয়ে তার স্ত্রী, পাঁচ ছেলে, পাঁচ মেয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন।